নাটোরে কুকুর আতঙ্ক ।। দুই দিনে কুকুরের কামড়ে আহত ৮

আপডেট: জানুয়ারি ৩, ২০১৭, ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস


নাটোরের বাগাতিপাড়ায় পাগলা কুকুরের কামড়ে দুইদিনে আটজন আহত হয়েছেন। বেওয়ারিশ এসব কুকুর নিধনে প্রশাসনের কোনো উদ্যোগ না থাকায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী। কুকুরের কামড় থেকে রেহাই পেতে লাঠি নিয়ে চলাফেরাও শুরু করেছেন তারা। স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভ্যাকসিন সুবিধা না থাকায় আক্রান্ত ব্যক্তিরাও চরম ভোগান্তি পোহাচ্ছেন।
স্থানীয়রা জানান, উপজেলার খন্দকার মালঞ্চি, নূরপুর চকপাড়া ও মল্লিকপুর গ্রামে একের পর এক মানুষকে পাগলা কুকুর কামড়ে দেয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। শুধু গত রোববার এ তিনটি গ্রামের তিন শিশুসহ অন্তত আটজনকে কুকুর কামড়িয়েছে। এ ছাড়াও মানুষের পাশাপাশি কুকুরের কামড়ের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না ওই গ্রামের গরু, ছাগল, হাঁস-মুরগিও। কুকুরের কামড়ে আহতরা হলেন, খন্দকার মালঞ্চি গ্রামের মৃত মজাহারের ছেলে অচেল মন্ডল (৬৫), মৃত ওমর আলীর ছেলে সাখাওয়াত সাকু (৬৫), আবদুল মতিনের মেয়ে স্কুলছাত্রী ছুম্মা (১০), রকিব উদ্দিনের মেয়ে সামিয়া (৭), নাসরুলের মেয়ে সোনালী (৮), মল্লিকপুর গ্রামের বেন্টুর স্ত্রী বিউটি (৩০), বাজিতপুর এলাকার অজ্ঞাত পথচারী দুই নারী।
আহত সামিয়ার বাবা রকিব উদ্দিন বলেন, কুকুরে কামড়ের পর তিনি ভ্যাকসিনের জন্য বাগাতিপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যাওয়াও কথা ভেবেছেন। কিন্তু স্থানীয় একজনের কাছে শুনেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসব ভ্যাকসিন পাওয়া যায় না। তাই তিনি নাটোর সদর হাসপাতালে যাবেন।
বাগাতিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রবি শংকর মন্ডল বলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কুকুরের কামড়ের ভ্যাকসিন সরবরাহের সেবা চালু করা নাই। তবে জেলা সদর হাসপাতাল থেকে ভ্যাকসিন দেয়া হয়। সেখান থেকে এই সেবা নিতে পরামর্শ  দেন তিনি।