নাটোরে গণঅনশন, মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০২১, ৯:৩৮ অপরাহ্ণ


নাটোর প্রতিনিধি :


নাটোর সহ সারা দেশে পূজা মন্ডবে হামলা ও হিন্দু সম্প্রদায়ের বাড়ি-ঘড়ে অগ্নি সংযোগ লুট-পাট এবং জুলুম নির্যাতনের প্রতিবাদ, দোষীদের দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে শাস্তি নিশ্চিতকরাসহ সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবিতে নাটোরে গণঅনশন, মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ- খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নাটোর জেলা শাখার আহবানে শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহরের কানাইখালি পুরাতন বাসষ্ট্যান্ড এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে পরিষদের নাটোর জেলা শাখার সভাপতি চিত্ত রঞ্জন শাহার সভাপত্বিতে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের জেলা শাখার সভাপতি ও নাটোর পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, পূজা উদযাপন পরিষদের নাটোর জেলা শাখার সহসভাপতি অ্যাড. প্রসাদ তালুকদার বাচ্চা, সাধারণ সম্পাদর অ্যাড. খগেন্দ্র নাথ রায়, আদিবাসী পরিষদের নাটোর জেলা কমিটির সভাপতি প্রদীপ লাকড়া, পূজা উদযাপন পরিষদের জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুব্রত সরকারসহ জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। এ কর্মসূচিতে জেলার স্কন মন্দির, স্বর্নকার সমিতি, হরিজন সমিতি, রবিদাস সমিতি, হরিমপুর শহা শম্বান কমিটি, আদিবাসি পরিষদসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের বিভিন্ন অঙ্গ সংগঠন এ প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নেন।

এসময় বক্তারা বলেন, গত নয় বছরে বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর ৩ হাজার ৬৭৯টি হামলা হয়েছে। ২০১৩ সাল থেকে হিন্দুসহ সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর উপর হামলার ঘটনাগুলো বেসরকারি মানবাধিকার সংস্থাটি একটি প্রতিবেদদের কথা উল্লেখ করেন ।
হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, দুর্গাপূজার মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার একটি মন্ডপে কুরআন অবমাননার কথিত অভিযোগ তুলে বেশ কয়েকটি মন্ডপ ও স্থাপনা ভাঙচুর হয়। তার জের ধরে তিন দিনে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৭০টি পূজামন্ডপে হামলা-ভাঙচুর-লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করেন তারা। এসব ঘটনার দোষীদের দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে শাস্তি নিশ্চিতকরাসহ সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন বাস্তবায়নের দাবিও করেন তারা।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ