নাটোরে জেলা পরিষদ নির্বাচন ।। আ’লীগের মনোনয়ন চায় দেড় ডজন নেতাকর্মী, কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় বিএনপি

আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০১৬, ১১:৫৭ অপরাহ্ণ

সুফি সান্টু, নাটোর
আগামী ২৮শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে নাটোরের সাবেক সাংসদসহ আওয়ামী লীগের ১৯ জন নেতাকর্মী। দলীয় মনোনয়ন লাভের আশায় অনেকেই ধর্ণা দিচ্ছেন স্থানীয় এবং কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে। অপরদিকে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে রয়েছে বিএনপি। আর জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয়ভাবে নির্বাচনে অংশ না নেয়ার ঘোষণা দেয়ায় নীরব দলীয় নেতাকর্মীরা।
এরই মধ্যে মাঠে নেমে ভোটারদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছেন অনেকেই। আবার ব্যানার ফেস্টুনের মাধ্যমে জানান দিচ্ছে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার বার্তাও। মনোনয়ন লাভের আশায় জেলার ১২-১৫ জন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা ঢাকায় অবস্থান করছেন। ইতোমধ্যে তারা দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য আবেদন ফরম তুলে জমাও দিয়েছেন। এদিকে জেলা নির্বাচন অফিস থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত সাধারণ সদস্য পদে মোট  মনোনয়ন ফরম উত্তলন করেছেন।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দৌঁড়ে এগিয়ে রয়েছেন জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মালেক শেখ, তার ভাই নাটোর সদর উপজেলা আ’লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলেক উদ্দিন শেখ, জেলা মহিলা আ’লীগের সভানেত্রী রতœা আহমেদ, সংরক্ষিত আসনের সাবেক সাংসদ ও জেলা আ’লীগের সদস্য ও সংরক্ষিত আসনের সাবেক সাংসদ শেফালী মমতাজ, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, যুগ্মসম্পাদক সৈয়দ মোতুর্জা আলী বাবলু, বর্তমান জেলা পরিষদের প্রশাসক সাজেদুর রহমান খান, জেলা আ’লীগের সদস্য সাজেদুর আলম খান চৌধুরী (বুড়া চৌধুরী), জেলা আ’লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, শামসুল ইসলাম, মাজেদুর রহমান চাদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক চিত্তরঞ্জন সাহা, লালপুর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আফতাব আহম্মেদ ঝুলফু, জেলা আ’লীগের যুগ্মসম্পাদক সরকার এমদাদুল হক, নাটোর পৌরসভার কাউন্সিলর আজিজুল ইসলাম আরজু, জেলা আ’লীগের সদস্য আসাদুজ্জামান আসাদ, জাতীয় কৃষকলীগের সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল ওহাব, নাটোর জজ কোর্টের এপিপি অ্যাডভোকেট শাজাহান কবির এবং জেলা মহিলা সংস্থার সভানেত্রী নাসিমা বানু লেখা।
এদের মধ্যে দৃশ্যমান মাঠে রয়েছেন হাতে গোনা দু-তিনজন। তারা হচ্ছেন, নাটোর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলেক উদ্দিন শেখ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রতœা আহমেদ।
নাটোর সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলেক উদ্দিন শেখ বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকেই চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন দিবেন এটা আমি বিশ্বাস ও প্রত্যাশা করি। কারণ বিগত দিনে নাটোরে আ’লীগের রাজনীতিতে আমার পরিবারের আবদান রয়েছে। যার কারণে দল আমাকে মনোনীত করবে। মনোনয়ন প্রত্যাশী রতœা আহমেদ বলেন, ইতোমধ্যে আমি ৪০টি ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি ভোটারদের সঙ্গে গণসংযোগ ও কুশল বিনিময় করেছি। আশা করছি দল আমাকে মনোনয়ন দিবে। কারণ বিগত দিনে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলাম। স্থানীয় সরকার নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে আমার। তাছাড়া মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নারী ক্ষমতায়নের জন্য কাজ করছে। সে কারণে নারী হিসেবে আমাকে মনোনয়ন দিবে। মনোনয়ন প্রত্যাশী নাটোর পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আরজু শেখ জানান, রাজনৈতিক সংকটময় মুহূর্তে দলের জন্য কাজ করেছি। দলের জন্য অত্যাচার-নির্যাতন সয়েছি হাসিমুখে। তরুণ প্রজন্মের একজন ত্যাগী কর্মীর মূল্যায়ন হবে সে বিশ্বাস থেকেই দলীয় মনোনয়ন চেয়েছি এবং পাবো বলে বিশ্বাস করি।
অপরদিকে, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচএম এরশাদ আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার ঘোষণা দেয়ায় ১৪ দলের শরীক দল হলেও নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে না তারা। এ বিষয়ে জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মজিবুর রহমান সেন্টু বলেন, দলের চেয়ারম্যান যেহেতু ঘোষনা দিয়েছে সে কারণে আমাদের কোন প্রস্ততি নেই। দল যদি অংশগ্রহণ করে আমরা চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করবো।
এদিকে কেন্দ্রের দিকে চেয়ে রয়েছে নাটোর জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা। দলটির একাধিক দায়িত্বশীল নেতা জানান, বিগত নির্বাচনে ভোট কারচুপি করে আ’লীগ মনোনীতরাই জনপ্রতিনিধি হয়েছে। যার কারণে জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপির জয় লাভ করার সম্ভাবনা কম। তাছাড়া নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না জেনেই বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না।
এ বিষয়ে জেলা বিএনপির সম্পাদক আমিনুল হক বলন, বিগত নির্বাচনগুলোতে আমাদের অভিজ্ঞতা তিক্ত। তারই ধারাবাহিকতায় জেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু হবে এমন গ্যারান্টি নাই। তবুও দেশ ও দলের স্বার্থে আমরা মূলত কেন্দ্রের নির্দেশনার দিকে চেয়ে রয়েছি। কেন্দ্র থেকে যে নির্দেশনা আসে সেটাই মানা হবে।
এ ব্যাপারে নাটোর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবুল হোসেন বলেন, জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে  এখন পর্যন্ত কেউ মনোনয়ন ফরম উত্তলন করে নি। তবে সাধারণ সদস্য পদে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৬ জন তাদের মনোনয়ন ফরম উত্তলন করেছেন। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এ মনোনয়ন ফরম উত্তলন করা যাবে এবং ওই দিনই জমাদানের শেষ দিন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ