নাটোরে যাত্রীবাহী বাসে ডাকাতি, বাসের চালকসহ গ্রেফতার ৩

আপডেট: নভেম্বর ৫, ২০১৬, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস



নাটোরে যাত্রীবাহি বাসে ডাকাতি চালিয়ে প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল লুটের ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতদলকে সহযোগিতার অভিযোগে বাসটির চালকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ভোর রাতে গুরুদাসপুর উপজেলার কাছিকাটা টোল প্লাজা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন, নাটোর সদর উপজেলার ফতেঙ্গাপারার এরশাদ আলীর ছেলে বাসের চালক কাবিল হোসেন, বগুড়া জেলার শেরপুরের মৃত্য আবদুল হাইয়ের ছেলে সুপারভাইজার মাহমুদ শরীফ ও চট্রগ্রামের হাটহাজারীর নুর আলমের ছেলে হেলপার মানিক মিয়া।
পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্ত বাসের যাত্রীরা জানান, ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী হানিফ পরিবহনের ভলভো বাসটি ৩২ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকা থেকে গত রাত পৌনে ১২টার দিকে ছেড়ে আসে। বাসটি সাড়ে ৪টার দিকে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার কাছিকাটা এলাকায় আসলে যাত্রীবেশী ৬জন ডাকাত আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে চালক ও যাত্রীদের জিম্মি করে। এসময় ডাকাদল বাসটি তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যাত্রীদের মালামাল লুট করে। ডাকাতদল ৩৫ কিলোমিটার এলাকা বাস চালিয়ে সদর উপজেলার গাজিরবিলে থামিয়ে যাত্রীদের কাছে লুট করা মালামাল একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে পালিয়ে যায়। যাত্রীরা দত্তপাড়া এলাকায় টহল পুলিশের গাড়ি দেখলে বাসটি থামিয়ে পুলিশে অভিযোগ করে। এসময় পুলিশ বাসের ৩ কর্মচারীসহ বাসটি আটক করে।
হানিফ পরিবহনের ক্ষতিগ্রস্ত বাসের যাত্রী ও যশহর অভয় নগরের বাসিন্দা হুমায়ন কবির রনি জানান, তিনি একটি বেসরকারি কসমেটিক কোম্পানিতে চাকরি করেন। গত রাতে ঢাকা থেকে অফিসের কাজে নাটোরে আসার জন্য হানিফ পরিবহনে উঠেন। রাত সাড়ে তিনটার দিকে সিরাজগঞ্জ ফুড ভিলেজে খাবার বিরতি দেয়া হয়। সেখান থেকে যাত্রী বেশে ৬ জন ডাকাত উঠে। পরে বাসটি বনপার-হাটি কুমরুল মহাসড়কের কাছিকাটা টোলপ্লাজা এলাকায় পৌঁছিলে যাত্রীদের জিম্মি করে নগদ টাকা, মালামাল, স্বর্ণ অলঙ্কার, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ লুট করে নেয়। এক পর্যায়ে বাসটি নাটোর সদর উপজেলার দত্তপাড়া এলাকায় পৌছিলে সেখানে ঝলমলিয়া হাই-ওয়ে ফাঁড়ির টহল পুলিশের গাড়ি দেখে ড্রাইভারকে চাপ সৃষ্টি করলে পরে সেখাানে বাস থামানো হয়।
নাটোর সদর থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মিজনুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বাসযাত্রীরা অভিযোগ করছে এ ঘটনার সাথে হানিফ পরিবহনের ড্রাইভার, হেলপার ও সুপারফাইজার জড়িত আছে মর্মে ক্ষতিগ্রস্ত বাসযাত্রী ও যশহর অভয় নগরের বাসিন্দা হুমায়ন কবির রনি বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা  দায়ের করেছেন। ঘটনাটি তদন্ত করে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ