নাটোরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে কেটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

আপডেট: জুন ৩০, ২০২২, ১০:২২ অপরাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি:


নাটোরের বড়াইগ্রামের রামেশ্বরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সরোয়ার হোসেন ওরফে পিঞ্জু সরকারের বিরুদ্ধে সেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম, দুর্নীতি এবং নিজ বিদ্যালয়ে নিয়োগ বাণিজ্যসহ পৌনে তিন কোটি টাকা লুটেরও অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার ( ৩০ জুন) সন্ধ্যায় নাটোর শহরের একটি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এসব অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগিরা।

এ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, বড়াইগ্রামের উপজেলাপর রামেশ্বরপুর গ্রামের মনির হোসেন। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্য ভুক্তভোগিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রবিন হোসাইন, নজরুল ইসলাম, ইলিয়াস পারভেজ, ভেকু মালিক তরিকুল ইসলামসহ অন্যান্যরা।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সরোয়ার হোসেন ওরফে পিঞ্জু সরকার স্থানীয়ভাবে বিল গরিলা পানি ব্যবস্থাপনা সমিতির সভাপতি। তিনি খাল খননের নামে ৪০ লক্ষ টাকা বরাদ্ধ পান। ওই খাল খননের ভেকু মালিককে ৭ লক্ষ টাকা আজ পর্যন্ত পরিশোধ করেন নাই। এছারাও রামেশ্বরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ এবং ডোবা ভরাট না করেই বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাত করাসহ স্কুলের জমি লীজ দিয়ে সেসব টাকাও লোপাট করেছেন।

নিয়োগ বাণিজ্য ও পাওনা টাকা চাওয়ায় গত ২৮ মে পিঞ্জু সরকার ও তার ভাইসহ ভুক্তভোগি ইলিয়াস পারভেজকে মারপিট করেছে। এই ঘটনায় থানায় ওই প্রধান শিক্ষকসহ ৩ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদি মারপিটের শিকার উপজেলার বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের মারিয়া গ্রামের মৃত ইসমাইল হোসেনের ছেলে ইলিয়াস পারভেজ।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ভুক্তভোগিরা শিক্ষক সারোয়ার হোসেন পিঞ্জুকে তার এসব কর্মকান্ডের জন্য গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক সরোয়ার হোসেন পিঞ্জু জানান, তার বিরুদ্ধে অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট। তাকে হয়রানি ও হেয় প্রতিপন্ন করার প্রয়াসেই এই মামলা করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর লোক পরিচয়দানকারী চৌকিদার পুত্র মনিরুল ইসলাম মনিরের হয়রানির শিকার হচ্ছেন তিনি। বর্তমানে স্ত্রী ও ৫ম শ্রেণিতে পড়–য়া শিশু কন্যাকে নিয়ে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছেন।