নাটোরে সাংসদ শিমুলের ছোট ভাই সাগরের নামে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযো ||গ অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন

আপডেট: এপ্রিল ১৭, ২০১৭, ১২:২১ পূর্বাহ্ণ

নাটোর অফিস



নাটোরের হরিশপুর বাসটার্মিনালের ঘর বরাদ্দ নিয়ে স্থানীয় সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুলের ছোট ভাই সাজেদুল ইসলাম সাগরের নামে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ করেছেন নাটোর বাস মালিক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক বাসিরুর রহমান খান চৌধুরী এহিয়া। গতকাল রোববার দুপুরে নাটোর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই অভিযোগ করেন।
এসময় বাস মালিক সমিতি দখল এবং সাংসদ পরিবারের অনৈতিক কর্মকা-ের দ্রুত সমাধান করা না হলে আজ সোমবার নিজ মালিকানাধীন ১৮টি বাস পুড়িয়ে এই অনৈতিক কর্মকা-ের প্রতিবাদ জানানো হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। অপরদিকে, অভিযোগ ভিত্তিহীন দাবি করে সংবাদ সম্মেলন করেছে জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতি।
নাটোর প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এহিয়া চৌধুরি বলেন, ২০১৪ সালে দুই বছর মেয়াদী নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্বলাভের পর থেকে ২০১৫ সালের ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে সমিতির সকল দায়দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে আসছিলেন। কিন্তু গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্ধারিত সময়ের আগেই ২০১৬ সালের ১৭ জানুয়ারি ওই কমিটি বিলুপ্তি না করে স্থানীয় সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল তার ছোট ভাই সাজেদুল ইসলাম সাগরকে সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে অধিষ্ঠিত করে নতুন একটি কমিটি তৈরি করে অনুমোদনের জন্য জোর সুপারিশ করেন। পরবর্তীতে নাটোর জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির নামে সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম সাগর বড়হরিশপুর বাসটার্মিনালে কাউন্টার বরাদ্ধের নামে প্রতি কাউন্টার থেকে অবৈধভাবে ১০ থেকে ১৫ লাখ টাকা নিয়ে বরাদ্দ দেয়। কিন্তু আদায়কৃত সমুদয় টাকা পৌরসভায় জমা দেয়ার কথা থাকলেও পৌরসভায় মাত্র ১ লাখ টাকা জমার রশিদ দেখানো হয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন খাতে সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল ও তার পরিবার নানা অনৈতিক কর্মকা-ের প্রতিবাদ জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বড়হরিশপুর বাসটার্মিনালের এক কাউন্টার মাস্টার জানান, প্রতিটা ভিআইপি কাউন্টার থেকে ১১ লাখ টাকা নেয়া হয়েছে। কিন্তু এর কোন প্রমাণ রাখা হয় নি। ওই সময়ে দাবিকৃত টাকা না দিলে আমাদেরকে কোন কাউন্টার দেয়া হবে না মর্মে জানিয়ে দেয়া হয়। এক প্রকার বাধ্য হয়েই টাকাগুলো দেয়া হয়েছে মালিক সমিতিকে।
এসময় নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাবেক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান, পৌরমেয়র উমা চৌধুরী জলি, নাটোর জেলা অটোরিক্সা সিএনজি মালিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. হোসেন সরদার উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে বিকেল চারটায় নাটোর বাস মিনিবাস মালিক সমিতি কার্যালয়ে পাল্টা সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে সমিতির যুগ্মসাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান বলেন, এহিয়া চৌধুরি সংবাদ সম্মেলনে ঘর বরাদ্দের অর্থ নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন।
তিনি বলেন, সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম সাগর পৌরসভার কাছ থেকে নির্দ্দিষ্ট পরিমান অর্থ দিয়ে ঘর বরাদ্দ নিয়েছেন এবং প্রতিমাসের ঘর ভাড়া পরিশোধ করে আসছে। এখানে কোন আর্থিক অনিয়ম হয় নি বলে দাবি করেন তিনি।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম সাগর, সমিতির সদস্য আবদুর রশিদ, জেলা শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন উপস্থিত ছিলেন।