নানা সমস্যায় জর্জরিত তানোর পৌরসভা, বঞ্চিত নাগরিক সেবা

আপডেট: এপ্রিল ৮, ২০১৭, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

তানোর প্রতিনিধি


রাজশাহীর তানোর পৌরসভার উন্নয়নে কোন প্রতিশ্রুতির প্রতিফলন আজো হয় নি। রাস্তা-ঘাট, বিদ্যুৎ, পয়ঃনিষ্কাশনসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত পৌরবাসী। ফলে পৌরবাসীরা প্রতিনিয়ত দূর্ভোগের মধ্যে দিয়েই জীবনযাপন করে আসছেন। তবে পৌর মেয়রের বর্তমান সরকারের বিমাতা সুলভ আচরণ ও বরাদ্দ কম থাকার কারণে পৌরসভার উন্নয়ন কার্যক্রম ব্যাহত হবার কথা দাবি করেছেন। পৌরসভা নির্মাণের দীর্ঘ প্রায়  কয়েক যুগেও পৌরসভা পানি নিষ্কাশনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা, কাঁচারাস্তাগুলো পাকাকরণ ব্যবস্থা না হওয়ায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।
জানা গেছে, রাজশাহী জেলা সদর থেকে প্রায় ৩৫ কি. মি. দক্ষিণ-পশ্চিম প্রান্তে অবস্থিত তানোর উপজেলা সদর তানোর পৌরসভার গ্রামগুলো এক সময় তালন্দ ও সনজাই ইউনিয়নের অন্তর্ভূক্ত ছিলো। কিন্তু ১৯৯৫ সালে দুই ইউনিয়নের ৫০টি গ্রামের মধ্যে থেকে মাত্র ৩০টি  গ্রাম রেখে অবশিষ্ট  গ্রামকে ওই দুইটি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে বিচ্ছিন্ন করে তানোর পৌরসভা গঠিত হয়।
পৌরসভার বাসিন্দা প্রভাষক মফিজ উদ্দিন ও তানোর বণিক সমিতির সভাপতি সারওয়ার হোসেন অভিযোগ করে জানান, ব্যাপক উন্নয়নের প্রত্যাশা নিয়ে এ পৌরসভাটি গঠন করা হয়। কিন্তু পৌরসভাটি গঠন হয়ে প্রায় ২১ বছর অতিবাহিত হয়েছে। অথচ আজো এর কোনো উন্নয়ন চোখে পড়ে নি। তাদের অভিযোগ পয়ঃনিষ্কাশনের ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায়, রাস্তার দু’ধারে রোড লাইট না থাকা, বিভিন্ন গ্রামে বিদ্যুৎ সংযোগ না পৌঁছা এবং কাঁচারাস্তাগুলো আজো পাকাকরণ না হওয়ায় পৌরবাসীরা প্রতিনিয়ত দূর্ভোগের মধ্যে দিয়েই জীবনযাপন করছেন।
তানোর উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান বন্ধনা রানী জানান, পৌরসভার পার্শ্বের গ্রাম সিন্দুকা দিয়ে গুবির পাড়া. তানোর বাজার হতে হঠাৎ পাড়াসহ পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ড়ে প্রায় ১ থেকে ২ কি.মি. করে কাচা রাস্তা রয়েছে। ফলে ভারি বর্ষা হলেই এসব রাস্তায় হাটু পর্যন্ত কাঁদা মাটি দেখা যায়। এ কারণে লোকজন এসব রাস্তা দিয়ে আর চলাচল করতে পারে না। আবার কিছু রাস্তায় পাকাকরণের জন্য ইট বিছিয়ে হিয়ারিং বনের কাজ শেষ করা হলেও আজো কার্পেটিং কিংবা পিস ঢালাইয়ের কাজ শেষ হয় নি। ফলে রাস্তাগুলো এখনো হিয়ারিংবনই রয়ে গেছে। ফলে রাস্তাগুলো অবশিষ্ট অংশের পাকাকরণ কাজ এখন অনিশ্চিত হওয়ায় এলাকাবাসী হতাশ হয়ে পড়েছেন।
এদিকে পৌরসভার গুবির পাড়া গ্রামের আব্দুল হালিম, সেন্দুকা গ্রামের মাস্টার মিজানুর রহমান,গাল্লাপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিব  জানান, প্রতিটি নির্বাচনের সময় প্রার্থীরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন-নির্বাচিত হলে তানোর পৌরসভাকে মডেল পৌরসভা ঘোষণা করা হবে। কিন্তু লাখ লাখ টাকা রাজ্য আদায় হলে ও আজো তানোর বাসির ভাগ্নে উন্নায়নের কোন ছোয়া লাগে নি বলে তারা জানান।   এ প্রসঙ্গে পৌর মেয়র মিজানুর রহমান মিজান জানান, বর্তমান সরকার তানোর পৌরসভার প্রতি বিমাতাসুলভ আচারণ করছে। স্থানীয় এমপি আ’লীগের প্রভাবশালী নেতা গত নির্বাচনে তার মনোনীত প্রার্থী পরাজিত হবার এক মাত্র কারণে পরিমিত বরাদ্দ চাওয়া হলে তা দেয়া হচ্ছে না। এজন্য প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়নে পয়ঃনিষ্কাশনের ড্রেনেজ, রাস্তা পাকাকরণ ব্যবস্থার কোন উন্নতি হয় নি বলে দাবি করেন তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ