নাসির ফিরেছেন ত্রিদেশিয় সিরিজে, নেই চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে

আপডেট: এপ্রিল ২১, ২০১৭, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ত্রিদেশিয় সিরিজ ও চ্যাম্পিয়নস ট্রফির জন্য বৃহস্পতিবার দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ৮ জাতির টুর্নামেন্টে ‘এ’ গ্রুপে ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচ খেলবেন মাশরাফি মুর্তজারা। এর আগে ১২ মে শুরু হবে ত্রিদেশিয় সিরিজ। কঠিন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সামর্থ্যের সবটুকু নিয়ে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। দল ঘোষণার পর সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হলো নাসির হোসেনের ফেরা। ত্রিদেশিয় সিরিজের দলে আছেন তিনি। কিন্তু চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দলে তাকে রাখেনি বিসিবি। নাসিরের সঙ্গে দলে ফিরেছেন শফিউল ইসলাম।
ডাবলিনে আয়ারল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডকে মোকাবিলা করতে ১৮ জনের দল চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ, আর চ্যাম্পিয়নস ট্রফি খেলতে ১৫ জনের দল। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, আগামী ২৫ এপ্রিল চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দল ঘোষণার শেষদিন ছিল।
আগামী ২৬ এপ্রিল ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে উড়াল দেবে বাংলাদেশ দল। সেখানে সাসেক্সের গ্রাউন্ডে দশ দিনের ক্যাম্পে অংশ নেবে লাল-সবুজরা। এরপর ডাবলিনে ১২ মে থেকে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ত্রিদেশিয় সিরিজে মুখোমুখি হবে তারা। সিরিজের প্রথম ম্যাচে আয়ারল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচ হবে ২৪ মে। এরপর আবার ইংল্যান্ডে ফিরবে তারা। এক সপ্তাহ সময় পাবে প্রস্তুতির। এরই মধ্যে এশিয়ার দুই পরাশক্তি ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টাইগাররা।
আগামী ১ জুন স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে তারা মোকাবিলা করবে ৫ জুন। আর ৯ জুন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলবে গ্রুপের শেষ ম্যাচ। আয়ারল্যান্ড সফর শেষে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি দলে বাদ পড়বেন নুরুল হাসান সোহান, নাসির হোসেন ও শুভাশীষ রায়। তাদের তিনজনের সঙ্গে স্ট্যান্ডবাই থাকবেন সাইফউদ্দিন।
গত বছরের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছিলেন নাসির। কিন্তু এর পর থেকে উপেক্ষিত থেকেছেন জাতীয় দলে। নিউজিল্যান্ড, ভারত ও শ্রীলঙ্কা সফরে ছিলেন না তিনি। তবে সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স দিয়ে নির্বাচকদের নজর কেড়েছেন নাসির। এসিসি ইমার্জিং টিম কাপে সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগেও শতক পেয়েছেন এ অলরাউন্ডার। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের অধিনায়ক প্রথম ম্যাচে অপরাজিত ছিলেন ১০৬ রানে। দ্বিতীয় ম্যাচে ৪১ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জেতান নাসির। তবে শুধুমাত্র ত্রিদেশিয় সিরিজের দলে জায়গা পেলেন তিনি। অবশ্য স্ট্যান্ডবাই হয়ে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে দলের সঙ্গে থাকবেন এ তারকা।
দলে নতুন মুখ সানজামুল ইসলাম। ৬২টি লিস্ট এ ম্যাচ খেলা এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান ৩৭৪ রান করার পাশাপাশি স্পিন করে নিয়েছেন ৭৯ উইকেট। আন্তর্জাতিক মঞ্চে এবার তার অভিষেকের পালা। ত্রিদেশিয় সিরিজ ও চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দুই দলেই রয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের গেল সফরে শ্রীলঙ্কায় দলের সঙ্গে ছিলেন সানজামুল। কিন্তু একাদশে জায়গা পাননি এ স্পিনার।
একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে দুই দল থেকেই বাদ পড়েছেন শুভাগত হোম। ইংল্যান্ডের কন্ডিশনের কথা মাথায় রেখে তাকে বাদ দেওয়ার কথা জানান প্রধান নির্বাচক। দলে শফিউলের ফেরা উল্লেখযোগ্য। গেল অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ওয়ানডে খেলেন ২৭ বছর বয়সী এ ফাস্ট বোলার। এর পর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে চোটে পড়েন তিনি। গত কয়েকটি সফরে তার বাদ পড়ার পেছনে ওই চোট ছিল একমাত্র কারণ। সুস্থ হয়ে এবার দুই দলেই জায়গা পেলন শফিউল।
বাঁহাতি পেসার সাইফউদ্দিন শ্রীলঙ্কার পর ইংল্যান্ডেও যাচ্ছেন। সর্বশেষ শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রেখেছিলেন তিনি। দুই ম্যাচে মাত্র একটি উইকেট পান তিনি। প্রিমিয়ার লিগে দুই ম্যাচ খেলে মোহামেডানের হয়ে নেন ২ ম্যাচে ৫ উইকেট। নির্বাচকরা আস্থা রেখে তাকে স্ট্যান্ডবাই হিসেবে ইংল্যান্ডে নিচ্ছেন।
ইংল্যান্ড ক্যাম্প ও ত্রিদেশিয় সিরিজের দল: মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদী হাসান মিরাজ, ইমরুল কায়েস, সানজামুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন, নুরুল হাসান সোহান, নাসির হোসেন ও শুভাশীষ রায়।
চ্যাম্পিয়নস ট্রফির দল: মাশরাফি মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মেহেদী হাসান মিরাজ, ইমরুল কায়েস, সানজামুল ইসলাম, শফিউল ইসলাম ও রুবেল হোসেন।
চ্যাম্পিয়নস ট্রফির স্ট্যান্ডবাই: নুরুল হাসান, নাসির হোসেন, শুভাশীষ রায় ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন।