নায়ক বিড়ম্বনার গল্পে ‘বিশেষ চরিত্র ভিলেন’

আপডেট: আগস্ট ৩০, ২০১৭, ১:০৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


তারকাখ্যাতির পর হিরো-হিরোইনের শিডিউল ফাঁসানো আর সময়জ্ঞানহীনতার বিড়ম্বনায় পড়তে হয় নির্মাতাদের। এবার এই বাস্তবতা গল্পের মোড়কে নাটকে তুলে আনলেন নির্মাতা মঞ্জুরুল ইসলাম। ঈদ উপলক্ষে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘বিশেষ চরিত্র ভিলেন’।
সম্প্রতি রাজধানীর এফডিসি, কারওয়ান বাজার, পলাশী, লালবাগ, আজিমপুর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জহুরুল হক হলে চিত্রায়িত হয়েছে নাটকটির। নাটকে ভিলেন সেজেছেন তারিক আনাম খান। অন্যদিকে হিরো চরিত্রে দেখা যাবে ইমনকে। নাটকে হিরোইন চরিত্রে অভিনয় করেছেন নওশাবা।
খলিল মাস্টার নামে একজন মঞ্চঅভিনেতা ও স্কুল শিক্ষকের চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ হয় একদিন। বিশেষ একটি দৃশ্যে ভিলেন চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে তিনি দেখেন তার সহঅভিনেতা হিরো জিমি খানের যথেচ্ছাচার। চিত্রনায়ক জিমি খান শুটিং সেটে কাউকে তোয়াক্কা করেন না। ইচ্ছামত শুটিং এ আসেন যান। দৃশ্য বাদ দিয়ে দেন। পরিচালক তার কাছে অসহায়। খলিল মাস্টার রীতিমত ভিলেনের অনুশীলন শুরু করেন। এফডিসিতে যান শুটিং করতে। খলিল মাস্টার ভিলেনের পোশাক পরে অপেক্ষায় থাকেন। অবশেষে তার দৃশ্য শুরু হবে। শিক্ষকতা জীবন থেকে যিনি শিক্ষার্থীদের শিখিয়েছেন সবার পেশাকে ভালবাসতে কারণ সেটাই তার কাছে দেশ। খলিল সাহেব অবাক হয়ে যান, যখন দেখতে পান শিল্পীরা শিল্পী পরিচয় দিতে ভালবাসেন, শিল্পের মধ্যে থাকতে, খেতে, ঘুমাতে ভালোবাসে কিন্ত শিল্পকে ভালোবাসে না। সময়ের জনপ্রিয় হিরোকে একটি চিরকুট দিয়ে চলে যান খলিল সাহেব। চিরকুট পাওয়ার পর হন্যে হয়ে খলিল সাহেবকে খুঁজতে থাকেন জিমি।
এমন গল্পেই নির্মিত হয়েছেন ‘বিশেষ চরিত্র ভিলেন’ নাটকটি। নির্মাতা বললেন, “আমাদের দেশে নির্মাতাদের এ ধরণের বিড়ম্বনায় প্রায়ই পড়তে হচ্ছে। তাই তুলে ধরা হয়েছে নাটকটিতে।” তিনি জানান, নাটকটি ঈদের ষষ্ঠ দিন সন্ধ্যা ৭টা ৩৫ মিনিটে প্রচারিত হবে দেশ টিভি তে।-বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ