নির্বাচনী জামানত ১০ হাজার টাকা করার প্রস্তাব

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নির্বাচনী জামানত ১০ হাজার টাকা করার প্রস্তাব করেছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। গতকাল রোববার নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে সংলাপে দলের পক্ষ থেকে সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্বমূলক নির্বাচন পদ্ধতি প্রণয়ন, নির্বাচনী ব্যয় কমানো, সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টিসহ ১৫ দফা প্রস্তাব উপস্থাপন করা হয়।
রাজধানীর আগারগাঁয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে অনুষ্ঠিত সংলাপে দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য মাওলানা সৈয়দ মো. ইউনুছ আহমাদের নেতৃত্বে ১১ সদস্যের প্রতিনিধি দল অংশ নেয়।
সংলাপে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা সভাপতিত্বে অন্য নির্বাচন কমিশনার, ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা অংশ নেন।
ইসলামী আন্দোলন ইসিকে আরো শক্তিশালী করে এর ক্ষমতা বৃদ্ধি, একাদশ সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার না করা এবং প্রার্থীসহ নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত সকলের প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রস্তাব করে।
এর আগে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট দলের চেয়ারম্যান আল্লামা এম এ মান্নানের নেতৃত্বে ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দল প্রধান নির্বাচন কে এম নূরুল হুদার নেতৃত্বাধীন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে বসে।
আলোচনাকালে তারা নির্বাচনের সময় স্বরাষ্ট্র, জনপ্রশাসন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে নির্বাচন কমিশনের অধীনে রাখাসহ ১০ দফা প্রস্তাব করে।
দলের কমিটিতে নারী প্রতিনিধিত্ব রাখার বাধ্যবাধকতা বাতিল করে তারা নারীদেরকে প্রত্যেক রাজনৈতিক দলের নির্বাহী কমিটিতে সীমিত কোটায় না রেখে প্রত্যেক দলের অঙ্গ বা সহযোগী সংগঠন করে স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার সুযোগ দেয়ার সুপারিশ করে।
এর আগে ২৪ আগস্ট থেকে পর্যায়ক্রমে বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল, খেলাফত মজলিস, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাগপার সঙ্গে সংলাপে বসে কমিশন।
কমিশনের পরিচালক (জনসংযোগ) এসএম আসাদুজ্জামান আজ বাসসকে জানান, আগামী ১২ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, বিকেল ৩টায় ইসলামী ঐক্যজোট, ১৪ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় কল্যাণ পার্টি ও বিকেল ৩টায় ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ, ১৭ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় ঐক্যবদ্ধ নাগরিক আন্দোলন ও বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, ১৮ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ ও বিকেল ৩টায় প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি), ২০ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় গণফ্রন্ট ও বিকেল ৩টায় গণফোরাম, ২১ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম, বাংলাদেশ ও বিকেল ৩টায় ন্যাশনাল পিপলস্ পার্টি (এনপিপি)-এর সঙ্গে সংলাপে বসবে কমিশন।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে গত ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপের মধ্য দিয়ে নির্বাচন বিশেষজ্ঞসহ অংশীজনদের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ শুরু করে নির্বাচন কমিশন। সুশীল সমাজের ৫৯ জনকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। পরে ১৬ ও ১৭ আগস্ট গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের সঙ্গে কমিশন সংলাপে বসে। এই দুই দিনে অর্ধশত গণমাধ্যম প্রতিনিধির কাছ থেকে কমিশন বিভিন্ন পরামর্শ গ্রহণ করে।
তথ্যসূত্র: বাসস