নৌকাডুবে লাশ হল ১৯ রোহিঙ্গা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১, ২০১৭, ১:৫২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


নাফ নদী দিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় নৌকা ডুবে অন্তত ১৯ রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়েছে, যাদের সবাই নারী ও শিশু।
বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে টেকনাফ উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ এলাকার মাঝেরপাড়া পয়েন্ট থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয় বলে টেকনাফ থানার ওসি মো. মাইনউদ্দিন খান জানান।
তিনি বলেন, “মৃতরা সবাই মিয়ানমারের রোহিঙ্গা। এদের মধ্যে ১০ জন শিশু, বাকি নয় জন নারী।”
সাবরাং ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নুরুল আমিন জানান, বুধবার রাত ও বৃহস্পতিবার ভোরে রোহিঙ্গাদের নিয়ে নাফ নদী হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের পর শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিমপাড়া ও মাঝারপাড়ায় সাগর তীরের কাছে দুটি নৌকা ডুবে যায়।
এ সময় বেশ কয়েকজনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বলেও জানান তিনি।
ওসি মাইনউদ্দিন খান বলেন, “নাফ নদীতে বেশ কয়েকটি মৃতদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা উদ্ধার করে তীরে নিয়ে আসে। পরে তারা পুলিশকে খবর দেয়।”
এর আগে বুধবারও নৌকাডুবির ঘটনায় চার রোহিঙ্গার লাশ উদ্ধার করা হয় নাফ নদী থেকে। এছাড়া সীমান্ত পেরিয়ে আসা ৭৫ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে বিজিবি।
গত ২৪ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে একসঙ্গে ৩০টি পুলিশ পোস্ট ও একটি সেনা ক্যাম্পে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ায় সীমান্তে নতুন করে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ঢল শুরু হয়।
রাখাইনের সংঘাতে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ এ পর্যন্ত ১০৪ জনের নিহত হওয়ার খবর এসেছে। আর এক সপ্তাহে অন্তত ১৮ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে বলে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইএমও) তথ্য।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ