নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয় : লিটন

আপডেট: আগস্ট ২৪, ২০১৭, ১২:৫১ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


অনুদানে অর্থ প্রদান করেন নগর আ’লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও সাধারণ সম্পাদক ডাবলূ সরকারসহ অতিথিরা-সোনার দেশ

মৃত শ্রমিক ও কন্যাদায়গ্রস্তের অর্থ প্রদান অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও নগর সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হয়। আমার পরিকল্পনা আছে রাজশাহীর মানুষের উন্নয়নের জন্য ৩০টি পোশাক কারখানা তৈরি করার। যেখানে রাজশাহীর ৫০ হাজার নারীর কর্মসংস্থান হবে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের আহ্বায়ক কমিটির উদ্যোগে শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান বাস টার্মিনাল চত্বরে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
সাবেক মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, রাজশাহীর উন্নয়ন করতে না পারলে ক্ষমতা ছেড়ে দিতে হবে। রাজশাহীর মেয়র (মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল) হয়ে মানুষের ভাগ্য নিয়ে খেলার অধিকার নেই। সরকার সম্প্রতি রাজশাহী সিটির উন্নয়নের জন্য ১৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। নগরবাসী সেই টাকার হিসাব চাই, টাকা কোথায় গেল? লিটন বলেন, কুমিল্লার বিএনপিপন্থী মেয়র থাকার পরও প্রধানমন্ত্রীর নিকট থেকে অর্থ বরাদ্দ নিয়ে আসে, কিন্তু রাজশাহীর মেয়র বুলবুল কেন পারছেন না?
বিএনপি-জামায়াতের উদ্দেশে লিটন বলেন, নগরীর সহজ-সরল মা-বোনদের আ’লীগের নামে ভুল তথ্য দিয়ে আর বিভ্রান্ত করবেন না। শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান রাজশাহীর মানুষের উন্নয়নের জন্য জীবন দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর অবদান যারা অস্বীকার করে তারা স্বাধীনতাবিরোধী ও রাজাকার। এজন্য সামনে মেয়র নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের বাইরে অন্য কোন প্রতীকে ভোট না দেয়ার আহ্বান জানান লিটন।
এদিকে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার বলেছেন, রাজশাহীর দৃশ্যমান উন্নয়ন খায়রুজ্জামান লিটন ভাই দেখিয়েছেন নগরবাসীকে। নগরীর রাস্তা-ঘাট, ড্রেন ও স্কুল-কলেজের উন্নয়ন কিভাবে করতে হয়। তিনি মেয়র না হয়েও এখন পর্যন্ত রাজশাহীর উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। শহিদ এএইচএম কামারুজ্জামান রাজশাহীর মানুষের পাশে ছিলেন, এখন তারই সন্তান সাবেক মেয়র লিটন ভাই রাজশাহীর মানুষের উন্নয়নের জন্য কাজ করছেন। কিন্তু বর্তমান মেয়র হিসেবে বুলবুল নগরবাসীর জন্য কতটুকু অবদান রাখছেন তা আপনাদেরই বুঝতে হবে।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাজশাহী সড়ক পরিবহন গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মুনজুর রহমান পিটার। কোরআন তেলাওয়াত করেন, ইমাম ও খতিব মাওলানা আবদুল খালেক। এতে সভাপতিত্ব করেন, জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের আহ্বায়ক কামাল হোসেন রবি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, নগর আ’লীগের উপপ্রচার সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, সড়ক পরিবহন গ্রুপের সহসভাপতি নাজিম উদ্দিনসহ ইউনিয়নের নেতাকর্মীবৃন্দ। বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাসহ সকল শহিদদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।
১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর ৪২ তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল, খাবার বিতরণ, ইউনিয়নের মৃত সদস্যদের পরিবারকে আর্থিক অনুদান প্রদান, কন্যাদায়গ্রস্ত শ্রমিক এবং শ্রমিকের ছেলের উচ্চ শিক্ষার জন্য ইউনিয়নের তহবিল হতে শিক্ষাবৃত্তির অর্থ অনুদান অনুষ্ঠান হয়।
সভায় সাত জন মৃত শ্রমিকের পরিবারের মাঝে ৮০ হাজার টাকা করে মোট ৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা ও ১৫ জন কন্যাদায়গ্রস্থ সদস্যকে ৩৫ হাজার টাকা করে ৫ লাখ ২৫ হাজার টাকা ও ২ জন শিক্ষাবৃত্তি সদস্যকে ১০ হাজার টাকা করে ২০ হাজার টাকা করে সর্বমোট ১১ লাখ ৫ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। এসব অনুদানের অর্থ প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথি প্রদান করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ