নৌকায় ভোট দিলে দেশ ও কৃষকের উন্নয়ন হয় : সাংসদ এনামুল

আপডেট: ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬, ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি



রাজশাহী ৪ (বাগমারা) আসনের সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, নৌকায় ভোট দিলে দেশ ও কৃষকের উন্নয়ন হয়। আর ধানের শীষে ভোট দিলে খাদ্য উৎপাদন কমে যায়। কৃষকদের হয়রানি হতে হয়। জোট সরকারের সময়ে দেশের খাদ্য উৎপাদন কমে যায়, বিদ্যুৎ উৎপাদন হয় না। আর আওয়ামী লীগের সময়ে দেশে বিদ্যুৎ ঘাটতি হয় না, খাদ্য উৎপাদনও কমে না। আর বর্তমানে দেশে ২৫ লাখ মেট্রিকটন খাদ্য মজুত রয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ভবানীগঞ্জ নিউমার্কেটের দোতলায় আয়োজিত কৃষক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বাগমারার কৃষকরা অবহেলিত। এতোবড় সমাবেশ বাগমারায় আর হয় নি। আমাগীতে বাগমারায় কৃষকদের নিয়ে আরো বড় সমাবেশের আয়োজন করা হবে। সেখানে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীকে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রণ জানানো হবে।
এলাকার সন্ত্রাসী কার্যকলাপের দিকে ইঙ্গিত করে সাংসদ বলেন, বাগমারা এলাকায় আর কোনো সন্ত্রাসীদের স্থান দেয়া হবে না। যারা সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করতে চায়, তাদের প্রতিহত করতে হবে। শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়ন ও শান্তির বাগমারা উপহার দিয়েছেন। তাই আগামী নির্বাচনে আবারো আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় নিয়ে আসতে হবে। বাগমারাবাসীকে শান্তিতে থাকতে দিতে হলে নৌকায় ভোট দিতে হবে। এই বিষয়ে কৃষকদের জাগ্রত করতে হবে বলে উল্লেখ করেন।
উপজেলা কৃষকলীগের উদ্যোগে উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি প্রভাষক এমদাদুল হকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি আবদুল লতিফ তারিন, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অনিল কুমার সরকার, কৃষক লীগের জেলা সভাপতি রবিউল আলম বাবু, সাধারণ সম্পাদক তাজবুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আতাউর রহমান, সহসভাপতি মহসিন আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, ভবানীগঞ্জ পৌরসভার আওয়ামী লীগের সভাপতি মেয়র আবদুল মালেক মন্ডল, উপজেলার যুগ্মসম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারোয়ার আবুল, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান সুজন, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আল মামুন। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন গোবিন্দপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা প্রভাষক আশরাফুল ইসলাম বাবু, কৃষকলীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, জোনাব আলী, ছাত্রলীগের উপজেলার সভাপতি আবদুল মালেক নয়ন। সমাবেশে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক মালেক মেহমুদ, আফতাব উদ্দিন আবুল, ফরহাদ হোসেন মজনু, ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, নুরুল ইসলাম, মহিলা আ’লীগের সভানেত্রী মরিয়ম বেগম, যুবমহিলা লীগের শাহিনুর ইসলাম, পারভীন খাতুন, জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সদস্য মাহমুদুর রহমান রেজা, নারগিস বেগম, চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, আয়েন উদ্দিন, আসলাম আলী আসকান প্রমুখ।
এদিন সকালে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে সমাবেশের উদ্বোধন করা হয়। সমাবেশে উপজেলার তিনজন আর্দশ কৃষককে স্বীকৃতি স্বরুপ নগদ ১০ হাজার টাকা ও একটি করে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে ১০ সহ¯্রাধিক কৃষক সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।