নৌকা আর বাঁশের সাঁকোই ঝুলে আছে মহাদেবপুরের লক্ষাধিক মানুষের স্বপ্ন

আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০১৬, ১১:২০ অপরাহ্ণ

এম সাখাওয়াত হোসেন, মহাদেবপুর



নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার ঐতিহাসিক শিবগঞ্জহাট ঘাটে এলাকার আত্রাই নদীর দুইপ্রান্তে পাকা সংযোগ সড়ক থাকলেও এ নদীর ওপর নেই একটি ব্রিজ। ব্রিজের অভাবে খরার সময় বাঁশের তৈরী চাঁটাইয়ের সাঁকো আর বর্ষার সময় নৌকা দিয়ে প্রতিদিন শিক্ষার্থীসহ হাজারো মানুষ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছেন।
উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দক্ষিণে শিবগঞ্জ বাজার। ওই বাজারে একটি সনামধন্য হাইস্কুল, প্রাথমিক বিদ্যালয় ও উপজেলার একমাত্র কৃষি ডিপ্লোমা কলেজ আছে। এসব স্কুল-কলেজে পড়াশোনা করার জন্য জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নদীর পশ্চিম পাশের কয়েকশ ছাত্রছাত্রী প্রতিদিন বাঁশের সাঁকো পার হয়ে বিদ্যালয়ে ও কলেজে আসে। ওই বাজার সংলগ্ন আত্রাই নদী। এ নদীর পশ্চিমে নওগাঁ জেলার বরেন্দ্র অঞ্চল খ্যাত নিয়ামতপুর, পোরশা, সাপাহার উপজেলাসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা। ওইসব উপজেলা থেকে শিবগঞ্জ বাজারের ওপর দিয়ে নওগাঁ জেলা শহরের সাথে পাকা সংযোগ সড়ক রয়েছে। তবে ওই সংযোগ সড়কের মাঝপথে আত্রাই নদীর উপর একটি ব্রিজ না থাকায় সরাসরি সড়ক যোগাযোগ স্থাপন হয় নি। কিন্তু এলাকাবাসী দীর্ঘদিন থেকে শিবগঞ্জ আত্রাই নদীর ওপর একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি করে আসলেও স্বাধীনতার ৪৫ বছরেও এ দাবি পূরণ হয় নি। ফলে ওইসব এলাকার লক্ষাধীক মানুষ ওই নদীর ওপর বাঁশের তৈরী চাঁটাইয়ের সাঁকো বানিয়ে কিংবা বর্ষার সময় নৌকায় পারাপার হচ্ছে।
এলাকাবাসী অভিযোগ করে বলেন, স্বাধীনতার পর থেকে যারা রাষ্ট্র ক্ষমতায় ছিলেন স্থানীয় সাংসদসহ বিভিন্ন নেতারা ওইস্থানে একটি ব্রিজ নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও এ পর্যন্ত পূরণ করতে পারে নি। এলাকাবাসী মহাদেবপুর-বদলগাছী আসনের সাংসদ ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিমসহ বর্তমান সরকারের যোগাযোগমন্ত্রী ওবাইদুল কাদের এর হস্থক্ষেপের মাধ্যমে ওইস্থানে একটি ব্রিজ নির্মাণ করে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ এলাকাবাসী তাদের দুঃখ-দুর্দশা লাঘবের জোর দাবি জানান।