ন্যাম হত্যা: বুলেট প্রুফ জ্যাকেট পরে আদালতে ওই দুই নারী

আপডেট: মার্চ ২, ২০১৭, ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমং জং উনের সৎভাই কিম জং ন্যাম হত্যার সঙ্গে জড়িত গ্রেপ্তারকৃত দুই নারীর বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ এনেছে মালয়েশিয়া।
বুধবার হাতকরা ও বুলেট প্রুফ জ্যাকেট পরিয়ে ২৫ বছর বয়সী সিতি আইশাহ ও ২৮ বছর বয়সী ডোয়ান থি হুওংকে আদালতে হাজির করা হয়।
সেখানে তাদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ পড়ে শোনানো হয়। অভিযোগ শুনানির পর তারা আত্মপক্ষ সমর্থন করে কিছু বলেননি বলে আদালতের রেকর্ড সূত্রে জানা গেছে।
এক সন্তানের মা আইশাহ ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে এবং অপরজন হুওং উত্তর ভিয়েতনামের গ্রামাঞ্চল থেকে মালয়েশিয়ায় এসেছিলেন।
এই দুজন ১৩ ফেব্রুয়ারি কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে ন্যামের মুখে অতি-বিষাক্ত নার্ভ এজেন্ট মাখিয়ে দেন, যার প্রভাবে পরবর্তী ১৫-২০ মিনিটের মধ্যেই ন্যামের মৃত্যু হয়।
ন্যাম হত্যায় তারা দোষী সাব্যস্ত হলে মালয়েশিয়ার আইনানুযায়ী তাদের মৃত্যুদ- হতে পারে।
পুলিশ হেফাজতে নিজ নিজ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের এই দুই নারী জানিয়েছেন, এই হত্যাকা-ে অনিচ্ছাকৃতভাবে তারা ব্যবহৃত হয়েছেন, চাতুর্যের আশ্রয় নিয়ে তাদের ব্যবহার করা হয়েছে।
উত্তর কোরিয়ার গুপ্তচররা এই হত্যাকা- সংঘটিত করেছে বলে দাবি যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের। দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা সংস্থাগুলোরও একই অভিযোগ।
আদালতের বাইরে হুওং এর আইনজীবী সেলভাম শানমুগাম সাংবাদিকদের বলেছেন, হুওং তার কাছে নিজেকে নিরপরাধ বলে দাবি করেছেন।
“সে অস্বীকার করেছে। সে অস্বীকার করেছে। সে বলেছে ‘আমি নিরাপরাধ’,” বলেন শানমুগাম।
“অবশ্যই সে ভেঙে পড়েছে, কারণ সে মৃত্যু পরোয়ানার মুখোমুখি,” যোগ করেন তিনি।
আগামী ১৩ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছে আদালত। ওই দিন সরকার পক্ষের আইনজীবীরা আদালতের কাছে এই দুইজনের বিচার একসঙ্গে করার আবেদন জানাবেন।
নিজ পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন ন্যাম চীনের ম্যাকাওয়ে বসবাস করতেন। ম্যাকাওয়ের বিমান ধরতেই কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে গিয়েছিলেন তিনি। উত্তর কোরিয়ার ওপর নিজ পরিবারের শাসন ও সৎভাই কিম জং উনের প্রকাশ্য সমালোচনা করতেন তিনি।- বিডিনিউজ