পত্নীতলায় পরিযায়ী পাখির গুঞ্জণে মুখরিত

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১, ২:৪৪ অপরাহ্ণ

ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, পত্নীতলা


নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর ইউনিয়নের কাঞ্চন গ্রামের হযরত জহির উদ্দীন (র:) এর মাজার শরীফ সংলগ্ন দীঘি থেকে এ ছবিটি তোলা হয়েছে।

নওগাঁর পত্নীতলায় পরিযায়ী পাখি (অতিথি পাখি) গুঞ্জণে উপজেলার বেশ কিছু এলাকা মুখরিত হয়েছে। শীত কেটে গেলেও পরিযায়ী পাখিদের সমাগম কমেনি। সেই সাথে প্রতিদিনই বাড়ছে পরিযায়ী পাখি প্রেমিদের মিলন মেলা।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বেশ কিছু এলাকায় তা পাখি প্রেমিদের অপরূপ দৃশ্য নয়নাভিরাম দৃষ্টি কেড়ে নেয় সবার সকাল না হতেই। মানুষের সাড়া শব্দ পেলেই দল বেঁধে ঝাঁকে-ঝাঁকে পাখি নিরাপদ দূরত্বে উড়ে যায়, আবার কিছু ক্ষণ পরেই চলে আসে। দু-ডানা মেলে উড়ে যাওয়ার দৃশ্য মোবাইলফোনের ক্যমারায় ছবি ও ভিডিও ধারণ করছেন অনেকেই। উপজেলার নজিপুর ইউনিয়নের কাঞ্চন গ্রামের হযরত জহির উদ্দীন (র.) এর মাজার শরীফ ও কাঞ্চন দীঘি, তদসংলগ্ন আত্রাই নদী ও কাঁটাবাড়ি এলাকার আত্রানদী তীরবর্তী এলাকা, দোচাই গ্রাম, নজিপুর পৌর এলাকার হরিরামপুর, দিবর ইউনিয়নের দিবর দিঘী, চাঁন পুকুর মিশন, নির্মইল ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের বটতলী বাজারের কবরস্থান, মাটিন্দর ইউনিয়নের শাশইল দিঘী, আমাইর ইউনিয়নের নান্দাশ এলাকার ঘুখশির বিল, পাটিচরা ইউনিয়নের নাগোর গোলা, ছালিগ্রামসহ এলাকায় বিভিন্ন প্রজাতির পরিযায়ী পাখি অভয়াশ্রম ভেবে আশ্রয় নেয় বলে স্থানীয় লোকেরা জানিয়েছেন। পরিযায়ী পাখির প্রজাতি গুলো হচ্ছে- শামুখখোল, চখাচখি, পান কৌড়ি, পাতি হাঁস, টিকি হাঁস ও গিরি হাঁস।
কাঞ্চন গ্রামের বাসিন্দা ও নজিপুর ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য পলাশ, আকরাম হোসেন, রিভা আক্তারসহ অনেকেই জানান, প্রতি বৎসরের ন্যায় এবার অনেক বেশি পরিযায়ী পাখির আগমন ঘটেছে ও উপজেলার নিরাপদ আশ্রয় এলাকা হিসেবে বিশেষ ভাবে চিহ্নিত কাঞ্চন গ্রামের হযরত জহির উদ্দীন (র.) এর মাজার শরীফ ও কাঞ্চন দীঘি এবং তদসংলগ্ন আত্রাই নদীর দুই পাড়।
বাংলাদেশ জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণ ফেডারেশন (বিবিসিএফ) এর আহবায়ক সদস্য ও সেচ্ছাসেবী সংগঠন পত্নীতলা উপজেলা জীব বৈচিত্র্য রক্ষা কমিটির সভাপতি শ্রী সুমন কুমার শীল বলেন, আমরা ওই সব পরিযায়ী পাখি গুলোকে রক্ষায় বিভিন্ন ভাবে প্রচারণার কাজ করে যাচ্ছি। তিনি আরো জানান, পরিযায়ী পাখি গুলোকে সংরক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণ করার জন্য অত্র এলাকায় যোগাযোগ বৃদ্ধিকল্পে রাজশাহী বন্য প্রাণি ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগকে পরিদর্শনের জন্য জানানো হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ