পত্নীতলায় সাধারণ ক্রেতার নাগালের বাহিরে নিত্যপণ্য

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০২১, ১:৪১ অপরাহ্ণ


ইখতিয়ার উদ্দীন আজাদ, পত্নীতলায় :


নওগাঁর পত্নীতলায় হাটবাজারে নিত্যপণ্যের দাম লাগামহীন বেড়েই চলছে। এলাকার বেশ কয়েকটি বাজার সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, ভোজ্য তেল, চিনি, আটা, ময়দা ও পেঁয়াজের দাম অসহনীয় মাত্রায় বেড়েছে। চালের দাম অনেকটাই স্থিতিশীল রয়েছে। কাঁচা শাক-সব্জির দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে কাঁচা মরিচের দাম তুলনামূলক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে।

স্থানীয় বাজারগুলোতে প্রতিকেজি সয়াবিন ১৬০ ও সরিষার তেল ১৮০, আদা ৮০, আটা ৩৫, ময়দা ৪৭, চিনি ৮০, মুগডাল ১৩০, বুটের ডাল ৮০ দামে বিক্রয় করা হচ্ছে।
কাঁচা তরকারির মধ্যে টম্যাটো ১২০-১৩০, মূলা ৪০, পটল ৩০-৫০, করলা ৪০, বেগুন ৩০-৪০, কাঁচা মরিচ ৮০-১০০ কেজিতে বিক্রয় হচ্ছে।
ককমুরগি ২৮০-৩০০, ব্রয়লার ১৫০-১৬০, গরুর গোসত ৫০০-৫৫০, ছাগল টাকা প্রতি কেজি ও ডিম প্রতি হালি ৩২-৪০ টাকা দরে বিক্রয় হচ্ছে।

সাধারণ ক্রেতারা দাবি করছেন, টিসিবির কয়েকটি নিত্যপণ্য পতœীতলার বাজারে বিক্রয়ের ব্যবস্থা করলে বাজার দর নিয়ন্ত্রণ ও সাধারণের ক্রয়ক্ষমতার নাগালে রাখা সম্ভব হবে। ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজারে মটিটরিং ব্যবস্থা দৃশ্যমান না হওয়ায় মুদি দোকানে মূল্য তালিকা নেই বললেই চলে।

বিক্রেতারা বলছে, বেশি দামে পণ্য কেনার কারণে কিছুটা বাড়তি দামেই বিক্রয় করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পতœীতলা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. লিটন সরকার বলেন, বাজারদর মনিটরিংয়ে অভিযান অচিরেই পরিচালনা করা হবে। তিনি আরো জানান, এছাড়া এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।