পত্লীতলা স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণি কক্ষে প্রবেশ করছে শিক্ষার্থীরা

আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২১, ১:৪৬ অপরাহ্ণ


পত্লীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি


নওগাঁর পত্লীতলায় যথাযথ সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনা ভাইাস প্রতিরোধে প্রাথমিক বিদ্যালয় কক্ষে প্রবেশ করছেন শিক্ষার্থীরা। হাসিমুখে দল বেধে স্কুল দিকে ছুটছে তারা। অভিভাবকরাও দীর্ঘদিন পর ফিরেছে পুরনো ডিউটিতে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন ও প্রথম হতে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে একদিন ক্লাস করছেন।
উপজেলার বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘুরে ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্কুলের গেটগুলোতে রাখা হয়েছে হাতধোঁয়ার ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাতে গেটেই দাঁড়িয়ে আছেন কিছু শিক্ষক। সেই সঙ্গে রাখা হয়েছে স্যানিটাইজারসহ করোনা প্রতিরোধের প্রাইমারি সবধরণের ব্যবস্থা।
ক্লাসরুম ঘুরে দেখা যায়, সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রতি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থী বসানো হয়েছে। দীর্ঘদিন পর ক্লাসরুমে ফিরতে পেরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে বাড়তি উত্তেজনা। সবার মুখে লেগে আছে মিষ্টি হাসি।
শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখতে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টরা প্রতিদিন তাদের পর্যবেক্ষণ করছেন একটি সার্ভিলেন্স টিম। আগত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সামাজিক দূরত্ব মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সারিবদ্ধভাবে প্রবেশ করানো হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের মানসিক ও শারীরিক সুস্থ্যতা রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের খেলাধুলা চলছে।
এদিকে দীর্ঘদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আসা উপলক্ষে কোনো কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মূল ফটকে বেলুন ও কৃত্রিম ফুল দিয়ে সজ্জিত করা হয়েছে।
উপজেলার নজিপুর পৌর এলাকায় অবস্থিত পুইয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. মরিয়ম বেগম ও ঘোষনগর ইউনিয়ন এ অবস্থিত খিরশীন এসকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনজুমান আরা বলেন, যথাযথ সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় কক্ষে প্রবেশ করছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের মানসিক ও শারীরিক সুস্থ্যতা রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের খেলাধুলা চলছে।
পতœীতলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রেণি কক্ষে প্রবেশ করছে শিক্ষার্থীরা
পতœীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধি
নওগাঁর পতœীতলায় যথাযথ সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনা ভাইাস প্রতিরোধে প্রাথমিক বিদ্যালয় কক্ষে প্রবেশ করছেন শিক্ষার্থীরা। হাসিমুখে দল বেধে স্কুল দিকে ছুটছে তারা। অভিভাবকরাও দীর্ঘদিন পর ফিরেছে পুরনো ডিউটিতে। সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক উপজেলায় পঞ্চম শ্রেণির ছুটির দিন বাদে প্রতিদিন ও প্রথম হতে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে একদিন ক্লাস করছেন।
উপজেলার বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ঘুরে ও শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, স্কুলের গেটগুলোতে রাখা হয়েছে হাতধোঁয়ার ব্যবস্থা। শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানাতে গেটেই দাঁড়িয়ে আছেন কিছু শিক্ষক। সেই সঙ্গে রাখা হয়েছে স্যানিটাইজারসহ করোনা প্রতিরোধের প্রাইমারি সবধরণের ব্যবস্থা।
ক্লাসরুম ঘুরে দেখা যায়, সামাজিক দূরত্ব মেনে প্রতি বেঞ্চে একজন করে শিক্ষার্থী বসানো হয়েছে। দীর্ঘদিন পর ক্লাসরুমে ফিরতে পেরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরাজ করছে বাড়তি উত্তেজনা। সবার মুখে লেগে আছে মিষ্টি হাসি।
শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যের দিকে লক্ষ্য রাখতে শ্রেণি কক্ষে শিক্ষক এবং প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টরা প্রতিদিন তাদের পর্যবেক্ষণ করছেন একটি সার্ভিলেন্স টিম। আগত শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সামাজিক দূরত্ব মেনে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সারিবদ্ধভাবে প্রবেশ করানো হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের মানসিক ও শারীরিক সুস্থ্যতা রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের খেলাধুলা চলছে।
এদিকে দীর্ঘদিন পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের আসা উপলক্ষে কোনো কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মূল ফটকে বেলুন ও কৃত্রিম ফুল দিয়ে সজ্জিত করা হয়েছে।
উপজেলার নজিপুর পৌর এলাকায় অবস্থিত পুইয়া মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসা. মরিয়ম বেগম ও ঘোষনগর ইউনিয়ন এ অবস্থিত খিরশীন এসকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনজুমান আরা বলেন, যথাযথ সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিদ্যালয় কক্ষে প্রবেশ করছেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের মানসিক ও শারীরিক সুস্থ্যতা রাখতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের খেলাধুলা চলছে।