পদ্মার পানি কমেছে তিন সেন্টিমিটার

আপডেট: অক্টোবর ৫, ২০১৯, ১:১৬ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীতে পর্যায়ক্রমে বাড়তে থাকা পদ্মার পানি ২১ দিনের মাথায় এসে তিন সেন্টিমিন্টার কমেছে। গত ১৪ সেপ্টেম্বর থেকে রাজশাহীতে পদ্মার পানি দুই-তিন সেন্টিমিটার করে বৃদ্ধি অব্যাহত ছিল।
এতে করে রাজশাহীর চারটি উপজেলার চরাঞ্চলে বন্যার পানিতে প্রায় সাড়ে চার হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সেই সাথে হুমকির মুখে পড়েছিল রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধ। পুরাতন নকশায় করা শহরের ১০ কিলোমিটার শহর রক্ষা বাঁধের অনেক এলাকায় ব্লক সরে গিয়েছিল। আবার টি-গ্রোয়েনসহ অনেক এলাকার বাঁধ দেবে গিয়েছিল। তবে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড থেকে হয়েছে-বাঁধ সুরক্ষিতই আছে। এজন্য নগরবাসীর আতঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। এছাড়াও নগরীর বাঁধসংলগ্ন এলাকায় পানির উচ্চতা বেড়ে যাওযায় প্লাবিত হয়েছে।
রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের গেজ মিটার রিডার এনামুল হকের তথ্য মতে, গত ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় ১৫ দশমিক ৩৯ মিটার থেকে পদ্মার পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। এরমধ্যে ফারাক্কার ১০৯টি লকগেট খুলে দেয়ার দিন (৩০ সেপ্টেম্বর) ১১ সেন্টিমিটার পানি একদিনে বৃদ্ধি পেয়েছিল। আর বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাজশাহী পয়েন্টে পদ্মা নদীতে পানির উচ্চতা সর্বোচ্চ উঠেছিল ১৮ দশমিক ১৯ মিটার। এদিন যা বিপদসীমার মাত্র ৩১ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। কিন্তু গতকাল শুক্রবার (৪ অক্টোবর) এসে টানা অব্যাহত থাকা পানি বৃদ্ধি কমে যায়। এতে করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুক্রবার সকাল ৬টা পর্যন্ত টানা ১২ ঘণ্টায় ১ সেন্টিমিন্টার পানির উচ্চতা কমে যায়। এরপর শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত আরও ১ সেন্টিমিন্টার পানি কমে। এই সময় পানির উচ্চতা ছিল ১৮ দশমিক ১৭ মিটার। এরপর বেলা ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত আরেক সেন্টিমিটার পানি কমে উচ্চতা দাঁড়ায় ১৮ দশমিক ১৬ মিটার। এর ফলে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী পয়েন্টে মাত্র তিন সেন্টিমিটার পানির উচ্চতা থেকে কমে গেছে।
তিনি আরও বলেন, পদ্মার পানি উচ্চতা থেকে নিচে নামবে খুব ধীর গতিতে। কারণ চাঁপানবাবগঞ্জের মহানন্দা পানি পদ্মা নদীর পানি থেকে উচ্চতা বেশি। আবার কুষ্টিয়া এলাকায় এবার পানি বিপদসীমার উপরে বইছে। সেইসাথে যমুনার পানিও বৃদ্ধি আছে। এজন্য রাজশাহীর পদ্মার বিভিন্ন পয়েন্টের পানি খুব আস্তে আস্তে নিচে নামবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ