পদ্মা নদীতে রাখালের গলিত লাশ উদ্ধার

আপডেট: জুলাই ৯, ২০১৭, ১:০৪ পূর্বাহ্ণ

বাঘা প্রতিনিধি


রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আলাইপুর গাবতলি গ্রামের শুকচাঁন আলীর ছেলে সুজন আলীর (২৫) গলিত লাশ পদ্মা নদী থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। কুষ্টিয়ার ফিলিপনগর ইউনিয়নের ইসলামপুরের আবেদের ঘাট এলাকা থেকে গত শুক্রবার সকালে তার লাশ দৌলতপুর থানার পুলিশ উদ্ধার করে।  নিহত সুজন আলীর চাচা জিল্লুর রহমান ও চাচাত ভাই দুরুল হোসেন জানান, সুজন আলী দীর্ঘদিন থেকে ভারত থেকে গরু নিয়ে আসার রাখালের কাজ করত। গত ৫ জুলাই রাত ৩টার দিকে সুজন আলীসহ আরো তিনজন দৌলতপুর সীমান্তের আলীনগরের উদ্দ্যেশ্যে নৌকা যোগে রওনা হয়। এই সময় তারা আলীনগর সীমান্তে কাছে পৌঁছলে টহলরত বিজিবি সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে। আত্মরক্ষার্থে তারা নদীতে ঝাঁপ দেয়। এরমধ্যে অন্য দুইজন সাঁতার কেটে পাড়ে আসলেও সুজন আলী ওই দিন থেকে নিখোঁজ ছিল। শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়ার ফিলিপনগর ইউনিয়নের ইসলামপুরের আবেদের ঘাট এলাকায় নিহত সুজন আলীর লাশ স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। বিকেলে লাশের ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনালের হাসপাতালে পাঠানো হয়। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় লাশের ময়না তদন্ত শেষে বাঘা উপজেলার আলাইপুর গাবতলি গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। দৌলতপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ দারা খাঁন বলেন, শুক্রবারে একটি লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বাঘা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহমুদ বলেন, নিহত সুজনের লাশ পদ্মার নদী থেকে দৌলতপুর থানার পুলিশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠিয়েছে বলে শুনেছি। তাবে নিহত সুজন  মাদকদ্রব্য আইনের তিনটি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি ছিল। এছাড়া সুজন আলী এলাকায় একজন চিহ্নিত চোরাকারবারী হিসেবে পরিচিত।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ