পন্টিংকে ছাড়িয়ে অধিনায়ক কোহলি

আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০২০, ১:৩৮ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


রেকর্ডের পর রেকর্ড গড়ে চলেছেন বিরাট কোহলি। রানের বৃষ্টি ঝরিয়ে প্রায় প্রতি ম্যাচের কোনও না কোনও কীর্তিতে নাম তুলছেন তিনি। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গত (শুক্রবার) টি-টোয়েন্টিতে যেমন আরেকটি রেকর্ড গড়লেন। রিকি পন্টিংকে সরিয়ে অধিনায়ক হিসেবে দ্রুততম ১১ হাজার রানের মালিক এখন ভারতীয় ব্যাটসম্যান।
ভারতের মাত্র দ্বিতীয় অধিনায়ক হিসেবে ১১ হাজার রান পূর্ণ করেছেন কোহলি। তার আগে এই কীর্তি আছে কেবল মহেন্দ্র সিং ধোনির। সব মিলিয়ে ষষ্ঠ অধিনায়ক হিসেবে এই মাইলফলকে পৌঁছেছেন কোহলি। শুক্রবার লঙ্কানদের বিপক্ষে পুনের তৃতীয় টি-টোয়েন্টির ১৩তম ওভারে লাকশান সান্দাকানের বলে সিঙ্গেল নিয়ে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে ১১ হাজার রানের ক্লাবে নাম লেখান ভারতীয় অধিনায়ক।
সঙ্গে একটি রেকর্ডও গড়েছেন কোহলি। তিনিই এখন ক্রিকেট বিশ্বের দ্রুততম ১১ হাজার রান করা অধিনায়ক। ভেঙেছেন রিকি পন্টিংয়ের রেকর্ড। এই মাইলফলক ছুঁতে কোহলির লেগেছে ১৯৬ ইনিংস, পন্টিংয়ের রেকর্ডটা ছিল ২৫২ ইনিংসে। যাতে প্রথম অধিনায়ক হিসেবে ২০০ ইনিংসের কম খেলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১১ হাজার পূরণ করেছেন কোহলি।
তার আগে এই কীর্তি আছে পাঁচ অধিনায়ক- পন্টিং, স্টিফেন ফ্লেমিং, ধোনি, অ্যালান বোর্ডার ও গ্রায়েম স্মিথের। যদিও ১১ হাজার রান করার পথে তাদের সবারই লেগেছে কোহলির চেয়ে বেশি ইনিংস। তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা পন্টিংয়ের ২৫২ ইনিংসের পরে রয়েছেন স্মিথ। দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়কের ১১ হাজার রান করতে লেগেছিল ২৬৪ ইনিংস। বোর্ডার মাইলফলকটি স্পর্শ করেছিলেন ৩১৬ ইনিংসে, ধোনির লেগেছিল ৩২৪ ইনিংস, আর ফ্লেমিংকে খেলতে হয়েছিল ৩৩৩ ইনিংস।
অধিনায়ক হিসেবে সর্বোচ্চ রানের তালিকায় সবার ওপরে অবশ্য পন্টিং। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ৩২৪ ম্যাচে করেছেন ১৫ হাজার ৪৪০ রান। ২৮৬ ম্যাচে স্মিথের রান ১৪ হাজার ৮৭৮, ৩০৩ ম্যাচে ফ্লেমিংয়ের ১১ হাজার ৫৬১ রান, ধোনির ৩৩২ ম্যাচে রান ১১ হাজার ২০৭, আর বোর্ডার ১১ হাজার ৬২ রান করেছেন ২৭১ ম্যাচে।
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে পুনের ম্যাচ দিয়ে ক্যারিয়ারে মাত্র দ্বিতীয়বার ছয় নম্বরে ব্যাট করেছেন কোহলি। রান আউট হওয়ার আগে ১৭ বলে করেন ২৬ রান। এর আগে ২০১৮ সালে একই পজিশনে ব্যাটিংয়ে নেমেছিলেন ভারতী ‘রান মেশিন’। তথ্যসূত্র: বাংলা ট্রিবিউন