পর্তুগালে দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৬২

আপডেট: জুন ১৯, ২০১৭, ১২:৫৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


পর্তুগালের মধ্যাঞ্চলে দাবানলে অন্তত ৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। নিহতদের অধিকাংশই শনিবার রাজধানী লিসবন থেকে ২০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে এবং কোয়িমব্রা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পূর্বে পেদ্রোগাও গ্রান্দি এলাকার রাস্তা দিয়ে গাড়িযোগে যাওয়ার সময় দাবানলের কবলে পড়ে বলে জানিয়েছে বিবিসি, বার্তা সংস্থা রয়টার্স। তারা গাড়ি থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় বলে জানিয়েছে পর্তুগাল সরকার।
দাবানলে আরও ৫৯ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে কয়েকজন দমকল কর্মী এবং একটি ৮ বছরের শিশু রয়েছে। ৬ দমকলকর্মীর অবস্থা গুরুতর।
দেশটির প্রধানমন্ত্রী আন্তোনিও কস্তা বলেছেন, “ভয়াবহ একটি ঘটনা প্রত্যক্ষ করলাম আমরা।”
মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানান তিনি। এর আগে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জর্জ গোমেজ জানিয়েছিলেন, ধোঁয়ায় শ্বাসরুদ্ধ হয়ে তিনজনের মৃত্যু হয় এবং ১৬ জন নিজেদের গাড়িতেই মারা যান।
তীব্র তাপ ও প্রবল বাতাসের কারণে শনিবার বিকেল দিকে দাবানল আরও তীব্র হয়ে ওঠে। বনে কীভাবে আগুন লেগেছে তা জানা যায়নি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তা নিয়ন্ত্রণও করা যায়নি। ইতোমধ্যেই বনে লাগা এই আগুন গত কয়েক দশকের মধ্যে পর্তুগালের সবচেয়ে প্রাণঘাতী দাবানলে পরিণত হয়েছে।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ