পশ্চিম তীরে বসতি নির্মাণ বন্ধ করতে ইসরায়েলকে ইউরোপের অনুরোধ

আপডেট: মে ৭, ২০২১, ৮:২৮ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


পশ্চিম তীরে নতুন করে বসতি নির্মান বন্ধ করতে ইসরায়েলকে অনুরোধ জানিয়েছে ইউরোপের ক্ষমতাধর পাঁচটি দেশ। বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, স্পেন ও যুক্তরাজ্য এ অনুরোধ জানায়।
এই অনুরোধ এমন এক সময় এল যখন ইসরায়েলি আদালতের সমর্থনে ইহুদি বসতি স্থাপনকারীরা শেখ জাররাহ থেকে কিছু ফিলিস্তিনি পরিবারকে বাস্তুচ্যুত করে বাড়িঘর দখল করছে এমন খবর পূর্ব জেরুজালেমে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনা তৈরি হয়।
ইউরোপীয় দেশগুলোর বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা ইসরায়েলের সরকারকে অনুরোধ জানাই তারা যেন অধিকৃত পশ্চিম তীরের হার হোমা ই অঞ্চলে ৫৪০ ইউনিট বসতি নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে এবং অধিকৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলে বসতি সম্প্রসারণের নীতি বন্ধ করে।’
এতে আরও বলা হয়, ‘যদি তা বাস্তবায়ন করা হয় তাহলে পূর্ব জেরুজালেম ও বেথেলহেমের মধ্যবর্তী হার হোমাতে বসতি স্থাপনের সিদ্ধান্তের ফলে একটি প্রকৃত ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রের সম্ভাবনা আরও ক্ষতিগ্রস্ত হবে।’
ইসরায়েল-ফিলিস্তিনি সংকটের মূল কেন্দ্র হলো ইহুদি, ইসলাম ও খ্রিস্টান ধর্মের পবিত্র স্থান জেরুজালেম।
১৯৬৭ সালের ছয় দিনের যুদ্ধে ইসরায়েল পূর্ব জেরুজালেম, পশ্চিম তীর ও গাজা উপত্যকা দখল করে নেয়। ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ মনে করে, তাদের ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রের রাজধানী হবে পূর্ব জেরুজালেম। বিশ্বের অনেক দেশই মনে করে পশ্চিম তীরসহ অন্যান্য অঞ্চলে ইসরায়েল যে বসতি স্থাপন করেছে তা অবৈধ।
পুর্ব জেরুজালেমেও ইসরায়েলের বসতি বৃদ্ধি বিশ্বের অনেক দেশের নেতাদের কাছেই স্বীকৃত নয়। ফিলিস্তিনিরা দীর্ঘদিন ধরে ফিলিস্তিনি বাসিন্দাদের ব্যয়ে শহরটিতে ইসরায়েলি-ইহুদিদের উপস্থিতি বাড়ানো, বাড়িঘর ভাঙ্গা, দৈনিক পুলিশি হয়রানি এবং বসতি সম্প্রসারণের লক্ষ্যে তৈরি বেশ কয়েকটি নীতিমালার দিকে ইঙ্গিত করে আসছে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ