পাঁচ বছর পর বাঘার ঐতিহাসিক ইদমেলা হবে

আপডেট: এপ্রিল ৪, ২০২৪, ৮:৩০ অপরাহ্ণ


আমানুল হক আমান, বাঘা:পাঁচ বছর পর দশ শর্তে পনের দিনব্যাপি ৫০০ বছরের বাঘার ঐতিহ্যমণ্ডিত ইদমেলা অনুষ্ঠিত হবে। ইতোমধ্যেই মেলার ইজারা প্রদান সম্পূর্ণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সকাল ১১ টায় বাঘা মাজার শরিফ চত্বরে ১৫ দিনের জন্য উন্মুক্ত ডাকের আয়োজন করা হয়। এই মেলা ২৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার বিনিময়ে ইজারা প্রদান করা হয়। ২০১৯ সালে সর্বশেষ মেলার ডাক হয়েছিল ২১ লক্ষ ৫২ হাজার টাকা।

জানা যায়, ৮ লক্ষ টাকার জামানত সাপেক্ষে এ ইজারায় অংশ নেয় এলাকার ২০ জন ব্যবসায়ী। এরমধ্যে সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ১৫ দিনের জন্য এই মেলা ইজারা দেয়া হয় বাঘা পৌর আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেনকে।

মেলা ইজারার সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম, উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল, মাজারের সদস্য সচিব মতোয়ালী খন্দকার মুনছুরুল ইসলাম রইস, অধ্যক্ষ নছিম উদ্দিন, বাঘা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য মহিদুল ইসলাম প্রমুখ।

পাঁচ বছর পর বাঘার এ বিষয়ে বাঘা ওয়াকফ্ এস্টেটের মোতোয়ালি ও মাজারের সদস্য সচিব খন্দকার মনছুরুল ইসলাম রইশ বলেন, আবদুল আব্বাসী (র.) বংশের হযরত শাহ্ মোয়াজ্জেম ওরফে শাহদৌলা (রহ.) ও তার ছেলে হযরত আব্দুল হামিদ দানিশমন্দ (রহ.) ওফাৎ দিবসে ধর্মীয় ওরস মোবারক উৎসবকে কেন্দ্র করে সাধকদের সাধনার পীঠস্থান হিসেবে ওয়াকফ এস্টেটের এলাকা জুড়ে ইদুল ফিতরে অনুষ্ঠিত হয় ইদ মেলা। তবে মেলায় অশ্লীল কোনো কিছু চলবে না মর্মে ১০টি শর্ত সাপেক্ষে ১৫ দিনের জন্য ইজারা দেয়া হয়েছে।

পাঁচ বছর পর বাঘার এ বিষয়ে মেলা কমিটির সহ-সভাপতি ও বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে মেলার আয়োজন করা হবে। সার্বক্ষণিক পুলিশ বাহিনী সতর্ক থাকবে। তারপরেও কোনো অপ্রীতিকর ও অনৈতিক কোন ঘটনা ঘটলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ