পাকিস্তানকে সরিয়ে টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে ফিরল ভারত

আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০১৬, ১১:৫২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক
লক্ষ্যমাত্রাটা যা ছিল, তাতে কলকাতা টেস্ট জিততে নিউজিল্যান্ডকে বিশেষ কিছুই করতে হতো। মনে মনে সে প্রত্যাশাটা নিশ্চয়ই ছিল ভারপ্রাপ্ত কিউই অধিনায়ক রস টেলরের। কিন্তু সে প্রত্যাশার গুড়ে বালি। মোহাম্মদ শামি, রবীন্দ্র জাদেজা আর রবিচন্দ্রন অশ্বিনের দুর্দান্ত বোলিংয়ে ১৯৭ রানেই গুটিয়ে গেছে নিউজিল্যান্ডের ইনিংস। এঁরা তিনজনই নিয়েছেন ৩টি করে উইকেট। ১৭৮ রানে কলকাতা টেস্ট জিতে সিরিজটা তো নিশ্চিতই হয়েছেই, চিরশত্রু পাকিস্তানকে হটিয়ে আইসিসির টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়েরও শীর্ষে ফিরেছে বিরাট কোহলির ভারত।

04
৮ উইকেটে ২২৭ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শেষ করা ভারত চতুর্থ দিনের শুরুতে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংস শেষ করে ২৬৩ রানে। রোহিত শর্মার ৮২ রানের ইনিংসের পাশাপাশি দ্বিতীয় ইনিংসে ফিফটি পেয়েছেন ঋদ্ধিমান সাহা। ৫৮ রানের ইনিংস খেলে চতুর্থ ভারতীয় উইকেটকিপার হিসেবে টেস্টের দুই ইনিংসেই ফিফটি পেলেন বাংলার ঋদ্ধিমান। তাঁর আগে এই কীর্তি ছিল মহেন্দ্র সিং ধোনি, ফারুক ইঞ্জিনিয়ার ও দিলওয়ার হোসেনের। দিলওয়ার তাঁর কীর্তিটি গড়েছিলেন কলকাতার ইডেন গার্ডেনেই।
টেস্টটি জিততে দুই দিনে ৩৭৬ রান করতে হতো নিউজিল্যান্ডকে। জবাবের শুরুটা ভালোই হয়েছিল তাদের। ওপেনিংয়ে ৫৫ রানের জুটি গড়ে লড়াইয়ের ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন টম ল্যাথাম ও মার্টিন গাপটিল। গাপটিল ২৪ রানে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে এলবিডব্লিউ হন। দ্বিতীয় উইকেটেও প্রতিশ্রুতি ছিল। হেনরি নিকোলসকে নিয়ে ৪৯ রানের জুটি গড়েন ল্যাথাম। নিকোলস ২৪ রানে আউট হন রবীন্দ্র জাদেজার বলে অজিঙ্কা রাহানের হাতে ক্যাচ দিয়ে আউট হলে জুটিটি বড় হতে পারে নি। ল্যাথাম লড়াই করেছিলেন। কিন্তু ১৪৮ বলে ৮ চারে ৭৪ করে আউট হন নিউজিল্যান্ড ইনিংসের মেরুদ- হয়ে থাকা ল্যাথাম।
ল্যাথামের ফেরার পর কিছুটা লড়েছিলেন লুক রনকি। কিন্তু বেশিক্ষণ টিকতে পারেন নি। ৩২ রানে জাদেজার বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। মিচেল স্যান্টনার ও বিজে ওয়াটলিংকে ফেরান মোহাম্মদ শামি। জিতান প্যাটেলকে ভূবনেশ্বর কুমার ও আর ম্যাট হেনরিকে জাদেজা ফেরান অল্প রানের মধ্যেই। শামি তুলির শেষ আঁচড়টা দিয়েছেন। ট্রেন্ট বোল্টকে মুরলি বিজয়ের ক্যাচে পরিণত করলে টেস্টের শীর্ষে ফেরার আনন্দে মাতে ভারত। সূত্র : স্টার স্পোর্টস-১।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ