পাকিস্তানেও তাজমহল, দারুণ আকর্ষণীয় এই প্রেম কাহিনী

আপডেট: মার্চ ৪, ২০২১, ১০:০৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


আগ্রার তাজমহল বিশ্বের সপ্তম আশ্চর্যের মধ্যে একটি। ভালোবাসার প্রতীক হিসেবে আজও এই স্মৃতিসৌধ মাথা উঁচু করে রয়েছে। তাজমহলের খ্যাতি আজ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছে। তবে আপনি জেনে অবাক হবেন, পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশে এক ব্যক্তি তাঁর স্ত্রীর প্রেমে অনেকটা এমনই একটা কাণ্ড ঘটালেন। স্ত্রী’র স্মরণে তিনি বানিয়ে ফেলেছেন তাজমহল।
পাকিস্তানের উমরকোটে আব্দুর রসুল তার স্ত্রীকে খুবই ভালোবাসতেন। স্ত্রীর মৃত্যুর পরে সে বানিয়ে ফেলে তাজমহল। এখন তাঁকে আধুনিক যুগের শাহজাহান হিসেবে বলা হচ্ছে। লোকেরা বহুদূর থেকে আব্দুর রসুলের এই অসাধারণ কীর্তি দেখতে আসছেন। উল্লেখ্য এই উমরকোটেই জন্ম গ্রহণ করেছিলেন বাদশাহ আকবর। ৪০০ বছর পর তাঁর সেই জন্মস্থান আবার খবরের শিরোনামে।
আব্দুর রসুল বলছেন, প্রেম আপনাকে নিজে থেকেই ভালবাসতে শেখায়, এক্ষেত্রে আপনাকে কিছুই করতে হবে না, আর তাজমহল প্রেমের লক্ষণ। আব্দুর জানিয়েছে তাঁর স্ত্রী’র নাম ছিল মরিয়ম। তাঁর উদ্দেশ্যেই এই স্মৃতিসৌধ।
আব্দুর ও মরিয়ম প্রায় ৪০ বছর ধরে একসঙ্গে দিন কাটিয়েছেন। এরমধ্যে আব্দুর দু’বার ভারতে এসে তাজমহল দেখেছিলেন। এরপর থেকেই সে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছিলেন যে তিনি একটি তাজমহল বানাচ্ছেন। মরিয়ম অবশ্য তাঁকে জানিয়েছিলেন, তাজমহল দেখে আসার ফলেই এমন স্বপ্ন দেখছিল সে।
২০১৫ সালে আব্দুরের স্ত্রী মরিয়ম একদিন হঠাৎ করে অজ্ঞান হয়ে যায়। হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা জানিয়ে দেয় তাঁর স্ট্রোক হয়েছে। এসময় সারাদিন রাত স্ত্রী-র সেবা যত্ন করেন আব্দুর। কিন্তু শেষরক্ষা তিনি করতে পারেননি। মৃত্যু হয় মরিয়মের।
সেই দিন থেকেই একা হয়ে গিয়েছিল আব্দুর রসুল। স্ত্রী’র স্মৃতিতে বানান তাজমহল। তিনি জানিয়েছেন, এটি তৈরিতে তাঁর ১২ থেকে ১৩ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। এখন দূর-দূরান্ত থেকে লোকেরা তাঁর তৈরি এই তাজমহল দেখতে আসে।
তথ্যসূত্র: শড়ষশধঃধ২৪ী৭

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ