পাকিস্তানে ভারী বর্ষণ ও বজ্রপাতে ৩৯ জনের মৃত্যু

আপডেট: এপ্রিল ১৬, ২০২৪, ২:০৬ অপরাহ্ণ

ফাইল ছবি

সোনার দেশ ডেস্ক :


পাকিস্তানে ভারী বৃষ্টি ও বজ্রপাতে অন্তত ৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে কয়েকদিন ধরেই ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, ফসল কাটার সময় বেশ কয়েকজন কৃষক বজ্রপাতে জীবন হারিয়েছেন। খবর বিবিসির।

আকস্মিক বন্যায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ও পরিবহন চলাচল ব্যাহত হয়েছে। বেশ কিছু ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে বৃষ্টির পানিতে কৃষিজমি ডুবে গেছে।
জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে পাকিস্তানে চরম আবহাওয়া বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সেখানে প্রাকৃতিক দুর্যোগও বৃদ্ধি পাচ্ছে। শুধু পাকিস্তান নয়, বিশ্বের বেশির ভাগ দেশেই এখন জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব প্রকট হয়ে উঠেছে।

এর আগে ২০২২ সালে পাকিস্তানের এক তৃতীয়াংশ অঞ্চলে ভয়াভহ বন্যায় এক হাজার সাত শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। এছাড়া আহত হয় আরো কয়েক হাজার মানুষ। এতে কয়েক লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়ে এবং কয়েক মাস ধরে বিশুদ্ধ খাবার পানির অভাব দেখা দেয়।
সে বছর খাইবার পাখতুনখোয়া ও বেলুচিস্তান প্রদেশের কিছু অঞ্চল বন্যায় অধিক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। চলতি বছরের বন্যা ও বজ্রপাতেও সেসব এলাকা আবারো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আগামী কয়েকদিনে আরো বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান পাকিস্তানের জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে ভূমিধস এবং আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির বিষয়েও সতর্ক করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, পাকিস্তানের সবচেয়ে জনবহুল প্রদেশ পাঞ্জাবে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার থেকে রোববারের মধ্যে সেখানে বজ্রপাতে ২১ জন প্রাণ হারিয়েছে।

এছাড়া পশ্চিম বেলুচিস্তান প্রদেশে কমপক্ষে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেখানে জরুরি অবস্থা জারি করেছে স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। এছাড়া সোম এবং মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) প্রদেশের সব স্কুল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ