পাকিস্তানে ২২ কোটি মানুষ এখনও বিদ্যুৎহীন

আপডেট: জানুয়ারি ২৩, ২০২৩, ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

বিদ্যুৎ না থাকায় প্রভাব পড়েছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। ছবি: রয়টার্স

সোনার দেশ ডেস্ক:


প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে রাজধানী ইসলামাবাদসহ পাকিস্তানজুড়ে বিদ্যুৎ বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। সোমবার সকাল ৭টা ৩৪ মিনিটে দেশজুড়ে বিদ্যুৎ বিভ্রাট সৃষ্টি হলে, পরিস্থিতি এখনও স্বাভাবিক হয়নি। তবে ১২ ঘণ্টার মধ্যেই স্বাভাবিক অবস্থায় আসার আশ্বাস দিয়েছেন দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী খুররাম দস্তগীর।

স্থানীয় টেলিভিশনে জ্বালানিমন্ত্রী জানান, জ্বালানি ব্যয় কমাতে শীতকালে রাতে সাময়িক সময়ের জন্য জাতীয় গ্রিড বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সকাল ৭টা ৩০ এর দিকে যখন ফের চালু করা হয়, তখন দেশের দক্ষিণাঞ্চল জামশোরো এবং দাদুতে সমস্যার খবর পাই আমরা।

তিনি আরও বলেন, ভোল্টেজ আপডাউন ছিল। আরও কিছু কারণে একের পর এক বিদ্যুৎ উৎপাদন ইউনিট বন্ধ হয়ে যায়। এটি বড় কোনও সংকট নয়।

পাকিস্তানে চরম অর্থনৈকি সংকট চলার মধ্যেই ২২ কোটি মানুষ বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছেন। গত চার মাসের মধ্যে এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো এশিয়ার এই দেশটিতে বড় ধরনের বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের কবলে পড়েছে।

জাতীয় গ্রিড হচ্ছে সারা দেশে বিদ্যুতের একটি সঞ্চালন ব্যবস্থা। প্রকৌশলীরা এটিকে অনেকটা মহাসড়ক বা রেললাইনের সঙ্গে তুলনা করেন। এ ব্যবস্থায় বিদ্যুৎ উৎপাদকদের কাছ থেকে নিয়ে ক্রেতাদের কাছে সরবরাহ করা হয়।
তথ্যসূত্র: আল জাজিরা, বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ