পাক প্রেসিডেন্ট হাউসে মার্কিন তরুণীকে মন্ত্রীর ধর্ষণ

আপডেট: জুন ৬, ২০২০, ৯:২৪ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


পাকিস্তানের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রহমান মালিকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন মার্কিন এক তরুণী ব্লগার। সিন্থিয়া ডি রিচি নামের ওই তরুণীর অভিযোগ ২০১১ সালে ইসলামাবাদের প্রেসিডেন্ট হাউসে তাকে ধর্ষণ করেন তৎকালীন মন্ত্রী রহমান মালিক।
সেই সময় ক্ষমতাসীন পাক প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি তার গায়ে হাত তোলেন বলেও দাবি করেছেন সিন্থিয়া। নিরপেক্ষ তদন্ত হলে সে সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্যপ্রমাণ তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।
বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান সরকারের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত সিন্থিয়ার পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি নিয়ে আগ্রহ রয়েছে। শুক্রবার ফেসবুক লাইভে দেশটির বর্তমান বিরোধী দল পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) নেতৃত্বের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ আনেন।
ফেসবুক লাইভে তিনি বলেন, ‘২০১১ সালে পাকিস্তানের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রহমান মালিক আমাকে ধর্ষণ করেন। ঠিকই শুনেছেন। আরও একবার বলছি, রহমান মালিক আমাকে ধর্ষণ করেছেন।’
এর পর আরও একটি ফেসবুক পোস্টে সিন্থিয়া জানান, ২০১১ সালে আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের বিরুদ্ধে অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে অভিযান চালায় মার্কিন সেনাবাহিনী। সেই সময় ভিসা নিয়ে কথা বলতে রহমান মালিকের সঙ্গে তার বাসভবনে দেখা করেন তিনি। সেখানে ঘুমের ওষুধ মেশানো পানীয় দেয়া হয় তাকে। পরে রহমান মালিক তাকে ধর্ষণ করেন। সেই সময় পাকিস্তানে পিপিপির সরকার ছিল। তাকে কেউ সাহায্য করবে না ভেবে সেই সময় এ নিয়ে মুখ খোলেননি বলে জানিয়েছেন সিন্থিয়া।
ইসলামাবাদে প্রেসিডেন্ট হাউসে থাকাকালীন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি এবং মন্ত্রী মখদুম সাহাবুদ্দিন তার গায়ে হাত তোলেন বলেও দাবি করেছেন সিন্থিয়া। ওই সময় পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ছিলেন আসিফ আলি জারদারি। তার স্ত্রী তথা পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও এর আগে একাধিক মন্তব্য করেছিলেন সিন্থিয়া।
প্রকাশ্যে দলীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে মুখ খোলায় জারদারি পরিবার ও পিপিপি তাকে হুমকি দিচ্ছে, তার পরিবারকে হেনস্থা করছে বলেও ফেসবুকে দেয়া একাধিক পোস্টে দাবি করেছেন সিন্থিয়া। সম্প্রতি এক পাকিস্তানি নাগরিকের সঙ্গে বাগদান সম্পন্ন হয়েছে সিন্থিয়ার। হবু স্বামীই তাকে সত্য ঘটনা সামনে তুলে আনতে উৎসাহ জুগিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।
এদিকে, ধর্ষণের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন পিপিপির নেতা ও সাবেক মন্ত্রী রহমান মালিক। শনিবার তার মুখপাত্র একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলেছেন, ‘এ নিয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য করতে চান না রহমান মালিক। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করছেন তিনি। এসব অভিযোগের কোনও সত্যতা নেই। রহমান মালিককের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই এ ধরনের মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে। এ জন বিশেষ ব্যক্তি ও সংগঠনের নির্দেশ মতো কাজ করছেন ওই মার্কিন নারী।’
অন্যদিকে, সিন্থিয়ার গায়ে হাত তোলার কথা অস্বীকার করেছেন সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানিও। ২০০৯ সালে পর্যটক হিসাবে প্রথম বার পাকিস্তানে পা রাখেন সিন্থিয়া ডি রিচি। অল্পদিনের মধ্যেই সেখানকার রাজনৈতিক মহলে ওঠাবসা শুরু হয়ে যায় তার।
সিন্থিয়ার দাবি, আন্তর্জাতিক মহলে পাকিস্তানের ভাবমূর্তি যাতে সঠিকভাবে তুলে ধরা যায়, তা নিয়ে আলোচনা করতে তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রাজা গিলানি এবং তার সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রহমান মালিক। পিপিপির জনসংযোগ বিভাগের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। বর্তমানে ইসলামাবাদেই বসবাস করছেন সিন্থিয়া। সেখানে চিত্রনির্মাতা হিসাবে কাজ করেন তিনি। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় লেখালেখিও করেন।
ইংরেজির পাশাপাশি সাবলীল উর্দু এবং পাঞ্জাবিও বলতে পারেন। একসময় পিপিপির অন্দরে ওঠাবসা থাকলেও, এই মুহূর্তে ইমরান খান সরকারের সঙ্গে দহরম মহরম রয়েছে তার।
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার, ইন্ডিয়া ট্যুডে, জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ