পাটের শাড়ি পরে পাট দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী

আপডেট: মার্চ ১০, ২০১৭, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



জাতীয় পাট দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও বহুমুখী পাটপণ্য মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পাটের শাড়ি পরে এসেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পাটজাত দ্রব্য ব্যবহারে সবাইকে উৎসাহিত করতেই পাটে শাড়ি পরে অনুষ্ঠানে আসেন তিনি।
বৃহস্পতিবার রাজধানীর খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে বহুমুখী পাটপণ্য উৎপাদনের পাশাপাশি পাট চাষ, সংগ্রহ ও সংরক্ষণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন শেখ হাসিনা।
পাট ও বহুমুখী পাটজাত পণ্য উৎপাদনে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাটের বহুমুখী ব্যবহার হচ্ছে। যে শাড়িটা পরে এসেছি, এটা পাটের তৈরি, যে ব্যাগটা ব্যবহার করছি, সেটাও পাটের তৈরি। বিভিন্ন উদ্যোগের মাধ্যমে পাটের বহুমুখীকরণ করে যাচ্ছি।
পাট থেকে উন্নত তন্তু, পলিথিনের মতো হালকা উন্নতমানের পাটের ব্যাগ, ওষুধি গুণ সম্পন্ন চায়ের মতো পাট পাতার পানীয়, পাটের বস্ত্র, ব্যাগ, নিত্য ব্যবহার্য্য বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী ব্যবহারে সুবিধা ও গুরুত্বের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
পাট থেকে আরও বহুমুখী পণ্য উৎপাদন করে রফতানির সুযোগ কাজে লাগানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন তিনি। পাটের চাহিদা বেড়ে গেছে, মানুষ এখন পরিবেশ সচেতন বলেও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।
আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পাট উৎপাদন থেকে শুরু করে পাট সংগ্রহ, সংরক্ষণ সব কিছুতে আরও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে। পাট চাষিরা যাতে একটু আরামে কাজ করতে পারে সেজন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি।
এক সময় বাংলাদেশের প্রধান অর্থকরী ফসল সোনালি আঁশ খ্যাত পাট ধ্বংসের বিভিন্ন প্রেক্ষাপটের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।
পাট শিল্প ধ্বংসে বিএনপির সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, একানব্বই সালে বিএনপি যখন ক্ষমতায় আসলো, তখন বিএনপি বিশ্বব্যাংকের পরামর্শে একটা চুক্তি সই করে। চুক্তিটি ছিল, তারা বাংলাদেশে একে-একে পাটকলগুলো বন্ধ করে দেবো। ঠিক একই সময় বিএনপি সরকার যখন বিশ্বব্যাংকের সঙ্গে এই চুক্তি করলো, তখন বিশ্বব্যাংক ভারতের সঙ্গে একই চুক্তি করলো, ভারতকে তারা টাকা দেবে নতুন-নতুন পাটকল তৈরি করার জন্য।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা তখন বিরোধী দলে। চুক্তির সেই কাগজপত্র নিয়ে এসে সংসদে বলেছিলাম- আড়াই লক্ষ টাকার পাট যদি বিদেশে রফতানি হওয়ার বাজার যদি থেকে থাকে, তবে বাংলাদেশের পাটকল কেন বন্ধ হবে? আর ভারত কেন নতুন পাটকল করার সুযোগ পাবে?
মেলায় পাটজাত দ্রব্যের স্টল ঘুরে দেখছেন শেখ হাসিনা, পিআইডিতিনি বলেন, বাংলাদেশে বিএনপি সরকার টাকা নিয়েছে বিশ্বব্যাংকের কাছ থেকে পাটকল বন্ধ করার জন্য। আর ভারত টাকা পেয়েছে নতুন পাট কল তৈরির জন্য। এভাবে আমাদের পাটকলগুলো তারা একে-একে বন্ধ করে দেয়।
পদ্মাসেতু প্রসঙ্গে ড. ইউনূসের সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা ব্যাংকের এমডি। বয়স হয়ে গেলে এ পদে থাকতে পারবেন না। সেটা নিয়ে কত বড় একটা ষড়যন্ত্র করা হলো। ব্যাংকের সামান্য একটা এমডি পদের লোভে একটা দেশের এতবড় সর্বনাশ যে করতে পারে, সে বিচার দেশবাসী করবে।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছিলাম। তারা অনেক প্রলোভন দিয়েছিলো। যে এটা করলে টাকা দেবে, ওটা করলে টাকা দিবে। আমি বললাম, মিথ্যা অপবাদ মাথায় নিয়ে ওই টাকা আমরা নেবো না। যতক্ষণ পর্যন্ত প্রমাণ করতে না পারবে। কিছুদিন আগে কানাডার আদালত রায় দিয়েছে। তারা প্রমাণ করতে পারেনি। ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের সমস্ত অভিযোগ ভুয়া-বানোয়াট।
প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি পাটের পোশাক ও পাটের ব্যাগ পরিধান করে তরুণ-তরুণীরা দৃষ্টিনন্দন ফ্যাশন শোতে অংশ নেন।
৬ মার্চ জাতীয় পাট দিবস। ‘সোনালী আঁশের সোনার দেশ, পাট পণ্যের বাংলাদেশ’ এ স্লোগানে প্রথমবারের মতো সারাদেশে জাতীয় পাট দিবস পালন করছে সরকার।- বাংলানিউজ