পাবজিতে বাধা, পরিবারের চারজনকে হত্যা করলো পাকিস্তানি যুবক

আপডেট: এপ্রিল ১১, ২০২১, ১২:০৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সারাদিন পাবজি খেলার নেশা। আর পরিবারের লোক খেলতে বাধা দেওয়ায় রাগের মাথায় চার সদস্যকে খুন করেছে এক পাকিস্তানি যুবক। হত্যাকাণ্ড চালানোর সময় ওই যুবক আবার সেজেছিল পাবজি খেলোয়াড়ের মতো। পুলিশ জানিয়েছে, সোমবার লাহোরের নাওয়া কোট এলাকায় এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।
পাকিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বিলাল নামে ওই যুবক সারাদিনই পাবজিতে মত্ত থাকতেন। তিনি মাদকাসক্তও। এই নিয়ে বহুবার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঝামেলাও হয় বিলালের। ঘটনার দিনও একই কারণে বাক-বিতণ্ডা হয়েছিল। ওই সময় আচমকাই পরিবারের সদস্যদের উদ্দেশে এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে থাকে সে। গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান বিলালের ভাই, বোন, ভাবি এবং এক পথচারী। গুলির শব্দেই ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। তারাই ওই যুবককে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন।
খবরে আরও বলা হয়েছে, হত্যাকাণ্ডের পুরো দৃশ্যটি ধরা পড়ে যায় সিসিটিভি ক্যামেরায়। যা পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরালও হয়। ভিডিওটি দেখে শিউরে ওঠেন অনেকেই। এতে দেখা যাচ্ছে, একেবারে পাবজি খেলোয়াড়ের বেশে হেলমেট, জ্যাকেট পরে এলোপাথাড়ি গুলি ছুড়ছে বিলাল। এই ঘটনার পর গোটা এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।
স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ওই যুবক নেশাগ্রস্থ অবস্থায় ছিল। সে মাঝেমধ্যেই মাদক সেবন করত। ইতোমধ্যে ওই যুবককে গ্রেফতার করে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তে নেমেছে পুলিশ।
এই ধরনের ঘটনা এই প্রথম নয়, এর আগেও বহুবার এমন খবর প্রকাশ্যে এসেছে। কোথাও পাবজি না খেলতে পেরে আত্মহত্যা, তো কেউ আবার পাবজি খেলায় বাধা পেয়ে পরিবারের লোকজনকে খুনও করা হয়েছে। ভারতেও গেমটি নিষিদ্ধ হওয়ার আগে এমন কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে।
তথ্যসূত্র: বাংলাট্রিবিউন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ