পাবনায় জহুরা ফাউন্ডেশন’র উদ্যোগে ১৪০ জনকে ইফতার সামগ্রী বিতরণ

আপডেট: মার্চ ১০, ২০২৪, ১০:৫৫ অপরাহ্ণ


পাবনা প্রতিনিধি:পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার জুমাইখিরি গ্রামে জহুরা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে স্থানীয় দুস্থ, অসহায়, বৃদ্ধ ও বিধবা ১৪০ জনের মাধ্যে ইফতার সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে।
রোববার (১০ মার্চ) বিকেলে ফাউন্ডেশনের নিজস্ব কার্যালয় চত্বরে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জহুরা ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও পাবনা মেডিকেল কলেজের সাবেক-সহকারী-অধ্যাপক ডা. রেজাউল হাসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, এন.এস.আই পাবনার উপ-পরিচালক কামরুল হাসান এবং জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক রাশেদুল কবীর।

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা-কর্মকর্তা, ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও প্রধান সমনবয়কারী আজিজুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের প্রবেশন-কর্মকর্তা মামুন হোসেন, আটঘরিয়া উপজেলা সমাজসেবা-অফিসার ইসমত জেরিন, সমাজসেবক-বীরমুক্তিযোদ্ধা মহিউদ্দিন আহমেদ, সমাজসেবক আজিজুল হক বিশ্বাস প্রমুখ। এ সময় এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

আয়োজকরা জানান, জুমাইখিরি, গোবিন্দপুর, গঙ্গারামপুর, চৌবাড়িয়া, হিদাসখোল, মহেশপুর, ডেঙ্গারগ্রাম এলাকার ১৪০ জন মানুষের মধ্যে এই ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এছাড়াও অসহায় একজন অসুস্থ্য মানুষকে একমাসের খাদ্য বাবদ নগদ ১৫ হাজার টাকা সহায়তা প্রদান করা হয়।

জহুরা ফাউন্ডেশনের সভাপতি ডা. রেজাউল হাসান জানান, ২০২০ সালে এই ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, শীতবস্ত্র বিতরণ, বিধবা, অসহায়দের চিকিৎসা সহায়তা, দরিদ্র ছেলে-মেয়েদের বিবাহে আর্থিক সহায়তা, স্বামী পরিত্যাক্ত ও দুস্থদের আর্থিক সহায়তা, প্রতিবন্ধীদের হুইল চেয়ার, দরিদ্র শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা, ছানিপড়া রোগীদের বিনামূল্যে অপারেশন, ইফতার সামগ্রী বিতরণ, দূর্যোগকালীন সহায়তা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে অনুদান, বস্ত্র বিতরণ, কোরবানী গোস্ত বিতরণ।

জেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক রাশেদুল কবীর বলেন, ভালো মানুষ দিনের শুরুটা ভালো কিছু দিয়েই শুরু করেন। খারাপ মানুষের দিন শুরু হয় খারাপ কাজ দিয়ে। জহুরা ফাউন্ডেশন যে কাজ করছেন তা এ সমাজের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এই প্রতিষ্ঠানের মতো সমাজের অসহায় মানুষের পাশে আরও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এগিয়ে এলে অনেক মানুষ উপকৃত হবেন।

জেলা এনএসআইয়ের উপপরিচালক কামরুল হাসান বলেন, ভালো কাজ হলো ভালো মানুষগুলোর অনুপ্রেরণা। অনুপ্রেরণামূলক কাজগুলোই দেশের মানুষের সমৃদ্ধি। সবাই যদি সামর্থ্য অনুযায়ী অসহায় মানুষগুলোর পাশে এগিয়ে আসি তাহলে অনেকাংশে হ্রাস পাবে দুস্থ অসহায় ও কর্মহীন মানুষের জীবনচিত্র।

অনুষ্ঠান শেষে সমাজসেবা কার্যালয় থেকে জহুরা ফাউন্ডেশনের নিবন্ধন সনদপত্র ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তাদের হাতে তুলে দেন সম্মানিত অতিথিবৃন্দ।