পাবনা-৪ উপনির্বাচন : রাত পোহালেই ভোট নির্বাচনী মাঠে সরব আওয়ামী লীগ-বিএনপি

আপডেট: September 24, 2020, 9:35 pm

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী :


পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘোরিয়া) আসনের উপনির্বাচনের প্রচার প্রচারণা শেষ। আজকের (শুক্রবার) রাত পোহালেই শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভোট। শেষ সময়ে এই উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরাও সরব হয়ে উঠেছেন। এই আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুজনিত কারণে শুন্য হওয়া এই আসনের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত এক মাস ধরে ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়া এই দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতাকর্মীরা করোনাকালের এই দুঃসময়েও মাঠ পর্যায়ে মিছিল-পথসভা শোডাউন করার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে রাজনৈতিক মাঠ সরগরম হয়ে ওঠে। আগামীকাল শনিবারের ভোট শেষে থেমে যাবে এই রাজনৈতিক কোলাহল।
গতকাল বৃহস্পতিবার এই উপনির্বাচনের প্রচারণার শেষ দিনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি পথসভার আয়োজন করলেও পথসভা দুটি জনসভায় রূপ নেয়। গতকাল বৃহস্পতিবার ঈশ্বরদীর মাহবুব আহমেদ খান স্মৃতি মঞ্চে ঈশ্বরদী পৌর আওয়ামী লীগ আয়োজিত নির্বাচনী পথসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে আওয়ামী লীগের সভাপতি মন্ডলির সদস্য মো. আব্দুর রহমান, প্রধান বক্তা হিসেবে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্কয়ার গ্রুপের অন্যতম পরিচালক মুক্তিযোদ্ধা অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু ছাড়াও পথসভায় নৌকা মার্কার প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান বিশ্বাসও বক্তব্য দেন।
ওদিকে পাকশীতে ঈশ্বরদী ইপিজেডের সামনে বিএনপি আয়োজিত ধানের শীষ প্রতিকের নির্বাচনী শেষ পথসভাও জনসভায় রূপলাভ করে। বিএনপির এই পথসভায় বিএনপির বিবদমান দুই নেতা সাবেক এমপি সিরাজুল ইসলাম সরদার এবং এই নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব এক মঞ্চে ধানের শীষের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেয়ায় শেষ মুহূর্তে বিএনপির দীর্ঘদিনের দ্বন্দ্ব অবসান হয়েছে বলে দৃশ্যমান হয়েছে।
এদিকে গত একমাস ধরে এই উপনির্বাচন নিয়ে উল্লেখযোগ্য কোন ঘটনা না ঘটলেও প্রচারণার শেষ সময়ে গত বুধবার রাতে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাসের দু’টি নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটে। এতে ঈশ্বরদীর সুষ্ঠ নির্বাচনী পরিবেশে ভাটা পড়ে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি একে অপরকে দায়ী করে অভিযোগ করলেও ঈশ্বরদী থানায় বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের আসামী করে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুটি মামলা দায়ের করেছে আওয়ামী লীগ।
আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুজ্জামান বিশ্বাস এ ঘটনায় বিএনপির প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিবকে উদ্দেশ্য করে বলেন, হাবিব না ঘরকা না ঘাটকা তিনি আওয়ামী লীগেরও নয়, বিএনপিরও নয়। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, আওয়ামী লীগের দলীয় নেতা-কর্মীরা নিজেরাই তাদের নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে বিএনপির ওপর দোষ চাপাচ্ছেন। নির্বাচনী মাঠে বিএনপি নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি রোধ করতে তারা এই অপকৌশল নিয়েছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দীন এ ঘটনা ও দুটি মামলার কথা স্বীকার করে বলেন, পুলিশ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ