পার্বতীপুর-পঞ্চগড় রেল রুটে ডেমুর পরীক্ষামূলক যাত্রা সফল যাত্রী নিয়ে চলতি মাসেই যাত্রা শুরু

আপডেট: সেপ্টেম্বর ৫, ২০২২, ১০:০৬ অপরাহ্ণ

পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:


পার্বতীপুর-পঞ্চগড় রেল রুটে ডেমুর সফল পরীক্ষা মূলক যাত্রার পর চলতি মাসেই যাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরুর সম্ভবনা রয়েছে। রবিবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পার্বতীপুর-পঞ্চগড় রেল রুটে ডেমুর পরীক্ষামূলক যাত্রা সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। ফলে চলতি মাসের যে কোন দিন ডেমু যাত্রী পরিবহনে যাত্রা শুরু করবে।

জানা গেছে, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর দেশীয় প্রকৗশলীদের প্রচেষ্টায় অবশেষে চালু হয়েছে ডেমু ট্রেন। রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সহযোগীতায় ট্রেনটি সচল করতে দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলওয়ে ডিজেল ওয়ার্কশপে কাজ শুরু করা হয়। প্রায় তিন বছর অচল থাকার পর সম্পূর্ণ দেশিয় প্রযুক্তিতে সচল করা হয়েছে এটি। চীনের মাধ্যমে এসব প্রতিটি ডেমু সচল করতে প্রায় চার কোটি টাকা ব্যয়ের কথা থাকলেও মাত্র ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে দেশেই তা ঠিক করা হয়েছে।

জানা যায় , স্বল্প দূরত্বে যাত্রী পরিবহনের লক্ষ্যে ২০১৩ সালে সাড়ে ৬০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ২০ সেট ডেমু ট্রেন চীন থেকে আমদানি করা হয়। কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত ওই ট্রেনগুলো এক ধরনের বিশেষ সফটওয়্যার দিয়ে পরিচালিত হয়ে আসছিলো। কিন্তু এর আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান চীনের তানশাং ইন্টারন্যাশনাল ও ডানিয়াল টেকনিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট ডেমু ট্রেনের এসব প্রযুক্তি বাংলাদেশকে হস্তান্তর করেনি। ফলে সময় বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এসব ডেমু ট্রেন একের পর এক বিকল হতে শুরু করে। এ সব সমস্যা সমাধানে চীনের প্রকৌশলীদের দ্বারস্থ হওয়ার প্রয়োজন হতো। এতে মোটা অংকের টাকাও গুনতে হতো রেলকে।

পার্বতীপুরের কেন্দ্রীয় লোকোমোটিভ কারখানা (কেলোকা‘র) প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম জানান, দেশের প্রকৌশলীরা চীনের লুকিয়ে রাখা কঠিন প্রযুক্তিকে বাদ দিয়ে সম্পূর্ণ সহজ পদ্ধতিতে নিজেদের প্রযুক্তি ব্যবহার করে দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলওয়ে ডিজেল ওয়ার্কশপে সচলের কাজ করে। সেখানে ৭২ কর্মদিবসে এসব ডেমু ট্রেন সচলের জন্য উপযোগী করে তোলেন কর্মকর্তারা। তারই অংশ হিসেবে ট্রায়ালে পাঠানো হয় ডেমু ট্রেনটি। সবকিছু ঠিক থাকলে সহজ পদ্ধতিতে বাকি অচল ডেমু ট্রেনগুলোকে সচল করা হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সব কিছু ঠিক ঠাক থাকলে চলতি মাসেই যাত্রী পরিবহন শুরু করবে ট্রেনটি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ