পাসপোর্টের ভেরিফিকেশনে টাকা নিলে ব্যবস্থা : আরএমপি কমিশনার

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৭, ১:০৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



পাসপোর্টের জন্য পুলিশ ভেরিফিকেশনের নামে কারো কাছ থেকে টাকা নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন, রাজশাহী মেট্রোপলিটন (আরএমপি) পুলিশ কমিশানর মো. শফিকুল ইসলাম।
গতকাল রোববার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয়ে ‘পাসপোর্ট সপ্তাহ-২০১৭’ উদ্বোধনকালে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। এর আগে আরএমপি কমিশনার ফিতা কেটে এবং বেলুন উড়িয়ে রাজশাহীতে পাসপোর্ট সপ্তাহের উদ্বোধন করেন।
পুলিশ কমিশনার বলেন, কোনো হয়রানি ছাড়াই সাধারণ মানুষ যেনো নির্ধারিত সময়েই পাসপোর্ট হাতে পান সেই দিকে সবার নজর রাখতে হবে। এখানে পুলিশেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কারণ আবেদন জমা দেয়ার পর পুলিশ ভেরিফিকেশন লাগে। এটি ছাড়া কেউ পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারেন না। তাই কোনো পুলিশ সদস্য যদি পাসপোর্ট ভেরিফিকেশসনের নামে অর্থ দাবি করে তাহলে তার (পুলিশ কমিশনারের) সরকারি নম্বরে সরাসরি অভিযোগ করার জন্য এ সময় অনুষ্ঠানে উপস্থিতিসহ নগরীর সকল পাসপোর্ট প্রত্যাশিদের প্রতি আহ্বান জানান আরএমপি কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম।
রাজশাহীর পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্য করে আরএমপি কমিশনার বলেন, আপনাদের সরকার বেতন দেয় সহজভাবে মানুষকে সেবা দেয়ার জন্য। তাই আপনারা কোনো হয়রানি ছাড়াই নিয়ম অনুয়ায়ী কাজটি করবেন।
দালালমুক্ত পরিবেশে হয়রানি ছাড়া পাসপোর্ট সেবা প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আরএমপি কমিশনার বলেন, শিক্ষিত মানুষ ছাড়াও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের মানুষ এখানে পাসপোর্ট করতে আসেন। কেউ বিদেশে চাকরির জন্য, কেউ চিকিৎসার জন্য, কেউ হজে যাওয়ার জন্য, আবার দেশ-বিদেশ বেড়ানোর জন্যও অনেকের পাসপোর্ট প্রয়োজন হয়। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায়, জরুরি কারণ ছাড়া সাধারণ মানুষ পাসপোর্ট করতে আসেন না। এজন্য তাদের সহযোগিতা করুন। আপনারা সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিলেই কেউ আর দালালদের খপ্পরে পড়বে না।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আবজাউল আলম বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন, অফিস সহায়ক হুমায়ন কবীর।
অনুষ্ঠানে জানানো হয়, রাজশাহী বিভাগীয় পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে ২০১০ সাল থেকে এই পর্যন্ত তিন লক্ষাধিক মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট (এমআরপি) প্রদান করা হয়েছে। ভিসা প্রদান করা হয়েছে ১ হাজার ১৫০টি। এর মধ্যে দিয়ে সরকারের প্রায় ৯০ কোটি টাকার রাজস্ব আদায় হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ