পিওনের মেয়ে নিতু মেডিকেলে ভর্তিতে এলাকার মুখ উজ্জল

আপডেট: এপ্রিল ১২, ২০২১, ৯:৩১ অপরাহ্ণ

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী:


ঈশ্বরদী পৌর এলাকার সাঁড়াগোপালপুর গ্রামের নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে ওঠা নাদিয়া ইসলাম নিতু সবাইকে অবাক করে দিয়ে মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তির্ণ হয়ে কৃতিত্বের সাক্ষর রেখেছেন। নিতু ঈশ্বরদী পৌরসভার পিওন নাজিম উদ্দিনের মেয়ে। ছোটবেলা থেকেই মেধাবি সে। সাঁড়াগোপালপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেণিতে বৃত্তিলাভ করা ছাত্রীর তালিকায়ও প্রথম নামটি তার। ঈশ্বরদীর এস.এম. মডেল সরকারি স্কুল এন্ড কলেজ থেকে মেধার সাক্ষর রেখে এসএসসি এবং ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ থেকে কৃতিত্বের সাথে এইচএসসি পাশ করে নিতু।
আগের বছর ভর্তি পরিক্ষায় উত্তির্ণ হয়েও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি না হয়ে চিকিৎসক হবার ইচ্ছায় নিতু এক বছর পর আবার মেডিকেলে ভর্তি পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করে। গত বছর না পারলেও এবার সে ভর্তি পরিক্ষায় মেধা তালিকায় স্থান পেয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে। নিতুর বাবা নাজিম উদ্দিন জানান, ২য় শ্রেণিতে পড়ার সময় থেকে নিতু ডাক্তার হওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে। আমি সামান্য পিওনের চাকরি করলেও কখনো ওকে অভাব বুঝতে দিইনি। নিতুর মা তাহেরা পারভিনও মেয়ের পড়ালেখার জন্য দিনরাত পরিশ্রম করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের পরিশ্রম আজ স্বার্থক হতে যাচ্ছে ভেবে খুবই গর্ব বোধ করছি, আনন্দ বোধ করছি।
ঈশ্বরদী পৌরসভার সচিব জহুরুল ইসলাম বলেন, আমার অফিসের পিওন নাজিম উদ্দিনের মেয়ে নিতু মেডিকেলে চান্স পেয়ে শুধু তার বাবা-মা ও পরিবারের মুখই শুধু উজ্জল করেনি, সে ঈশ্বরদী পৌরসভার মুখও উজ্জল করেছে। ঈশ্বরদী পৌরসভার মেয়র ইছাহক আলী মালিথা বলেন, পৌরসভার একজন পিওনের মেয়ে হয়ে নিতু যে গৌরব বয়ে এনেছে তাতে ঈশ্বরদী পৌর পরিষদ ও পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারিরাও গর্বিত।