পুকুর খনন রুখে দিলো এলাকাবাসি

আপডেট: মে ১১, ২০১৭, ১২:১৮ পূর্বাহ্ণ

বাগমারা প্রতিনিধি


সংঘবদ্ধ জনতার রোষানলে পড়ে নিজেদের জীবন রক্ষা করলেন রাজশাহীর বাগমারা এলাকার দিঘি খনন ও ভূমি দখলকারী প্রভাবশালীরা। রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের যশোর বিলে এ ঘটনা ঘটে। এলাকার লোকজন দিঘি খননকারীদের না পেয়ে তাদের মাটিকাটা দুইটি ড্রেজার (মাটি কাটা যন্ত্র) ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে।
খবর পেয়ে বাগমারা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ড্রেজার চালকের সহযোগী রিপন হোসেনকে (৩৫) আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ইউএনও নাছরিন আক্তার আটককৃত রিপন হোসেনকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। সাজাপ্রাপ্ত রিপন হোসেন নাটোর জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার কলাবাড়িয়া গ্রামের কাশেম আলীর ছেলে। ওই ঘটনার পর থেকেই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
এলাকাবাসী ও বাগমারা থানার পুলিশ জানায়, উপজেলার গোয়ালকান্দি গ্রামের প্রভাবশালী জিল্লুর রহমান, রামরামা গ্রামের আবদুল লতিফ ও কনোপাড়া গ্রামের নজবুল ইসলাম এলাকার লোকজনকে না জানিয়ে গত মঙ্গলবার গভীর রাতে দুইটি ড্রেজার মেশিন ভাড়া করে যশোর বিলের বিভিন্ন মানুষের জমি জবর দখল করে দিঘি খনন শুরু করে। গতকাল বুধবার সকালে এলাকার লোকজন যশোর বিলে গেলে জবর দখল করে দিঘি খননের বিষয়টি লোকজনের নজরে আসে। দিঘি খননের বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে কয়েক গ্রামের লোক সংঘবদ্ধ হয়ে লাঠি সোটা ও দেশীয় অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দিঘি খনন প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়ে যশোর বিলে যায়। লোকজনের উপস্থিতি দেখে দিঘি খনন ও ভূমি জবর দখলকারীরা বিল থেকে পালিয়ে যায়। এলাকার লোকজন একত্রিত হয়ে বিলের মধ্যে দিঘি খননকারী মাটি কাটা ড্রেজারটি গুড়িয়ে দেয়। খবর পেয়ে বাগমারা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে সংঘবদ্ধ জনগণের হাত থেকে দিঘি খননের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ড্রেজার চালকের এক সহযোগী রিপন হোসেনকে আটক করে।
এলাকার লোকজন জানান, বাগমারায় ফসলি জমি নষ্ট করে বড় বড় বিল গুলোতে প্রায় দেড় হাজার দিঘি ও পুকুর খনন করেছে প্রভাবশালীরা। প্রভাবশালী হওয়ার কারণে তাদের বিরুদ্ধে আইনের কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হয় নি।
বাগমারায় ফসলি জমি নিঃশষ হতে থাকলে সাংবাদিকেরা ফলাও করে তা গণমাধ্যমে প্রকাশ করতে থাকে। এরপর এলাকার এক আইনজীবী বাগমারায় ফসলি জমিতে দিঘি ও পুকুর খনন বন্ধের জন্য হাইকোর্টে একটি পিটিশন (অভিযোগ) দাখিল করেন। মহামান্য হাইকোর্টের বিচারক বিষয়টি আমলে নিয়ে বাগমারায় দিঘি ও পুকুর খনন বন্ধের নির্দেশ দেন। আদালতের নির্দেশ অমান্য করে এলাকার প্রভাবশালীরা রাতের অন্ধকারে অন্যের জমি জবর দখল করে আবারো পুকুর খননের উদ্যোগ নেয়। মঙ্গলবার রাতে সবার অজান্তে উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের যশোর বিলে ড্রেজার নামিয়ে পুকুর খননের কাজ শুরু করে। ভোর হওয়ার পরপরই এলাকার লোকজন বিষয়টি বুঝতে পারে এবং প্রভাবশালীদের ধাওয়া দিলে তারা বিল থেকে পালিয়ে যায়। এলাকার লোকজন পুকুর খননের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নিয়েছেন বলে জানা গেছে।
এ ব্যাপারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও ইউএনও নাছরিন আক্তার জানান, আটককৃত রিপনকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে নিজের দোষ স্বীকার করায় তাকে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। অপরদিকে বাগমারা থানার ওসি নাছিম আহম্মেদ জানান, সাজাপ্রাপ্ত আসামি রিপন হোসেনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ