‘পুকুর পুনঃখনন ও ভূ-উপরিস্থ পানি উন্নয়নের মাধ্যমে ক্ষুদ্র সেচে ব্যবহার’ প্রকল্প পরিদর্শন

আপডেট: এপ্রিল ১৮, ২০২২, ৯:২৬ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


‘পুকুর পুনঃখনন ও ভূ-উপরিস্থ পানি উন্নয়নের মাধ্যমে ক্ষুদ্র সেচে ব্যবহার’ (এসডব্লিউআইপি) প্রকল্প পরিদর্শন করা হয়েছে। সোমবার (১৮ এপ্রিল) দুপুরে গোদাগাড়ীর পাকড়ী ইউনিনের গোপালপুর মৌজার পুনঃখননকৃত এবং চলমান খননকাজের এই প্রকল্প পরিদর্শন করেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের (নিরীক্ষা) অতিরিক্ত সচিব রেজাউল করিম।

এসময় তিনি ছয়টি পুকুর পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেন। তিনি পুকুরে মাছ চাষ, গৃহস্থালী কাজের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের সবজিতে সেচ প্রদান এবং অন্যান্য ফসলে সম্পুরক সেচ প্রদানের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

তিনি উপজেলা প্রশাসনের সাখে যোগাযোগ করে এলাকাভিত্তিক পুরঃখননকৃত কিছু পুকুর লীজ বর্হিভূত রেখে স্থানীয় কৃষকদের মাধ্যমে পুকুরের পানি সম্পুরক সেচে ব্যবহারের পরামর্শ প্রদান করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক শরীফুল হক, নির্বাহী প্রকৌশলী মোকতাদিউর রহমান, উচ্চতর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আলম আবদুল মান্নান, গোদাগাড়ী জোন-২ দপ্তরে কর্মরত উচ্চতর উপ-সহকারী প্রকৌশলী আব্দুল খালেক প্রমুখ।

জানা গেছে-এই প্রকল্পে আওতায় রাজশাহী, নাটোর, বগুড়া, নওগাঁ ও চাঁপাইনবাবগেঞ্জর ৭১৫টি খাস মৌজা পূনঃপুকুর খনন করা হবে। এছাড়া প্রায় ১০০ থেকে ১৫০ বছর আগের খননকৃত পুকুরগুলোর মৌজে গিয়ে পানির ধারণ ক্ষমতা কমে যায়। বর্তমানে পুকুরগুলো খনন করার ফলে পানির প্রবাহ ঠিক হচ্ছে। এতে করে কৃষি কাজ ছাড়াও হাঁস পালন করা সম্ভব হবে।