পুঠিয়ায় ধর্ষণ মামলার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

আপডেট: জুলাই ২১, ২০২০, ৭:২০ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় ধর্ষণ মামলার আসামি ও মাদক ব্যবসায়ী এখলাস আলী (৩০) র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। র‌্যাব জানায়, মঙ্গলবার (২১ জুলাই) ভোররাতে মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে গেলে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে। এ সময় তার কাছে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ওয়ানশুটার গান, দুই রাউন্ড গুলি ও ৪৮০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।
নিহত এখলাস আলী উপজেলার হলহলিয়া গ্রামের কাশেম আলী সরকারের ছেলে।
এ ব্যাপারে পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রেজাউল ইসলাম বলেন, ভোররাতে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এখলাস আলী নিহত হয়েছে। র‌্যাবের সদস্যরা ভোর রাতেই তার লাশ থানায় দিয়েছেন।
র‌্যাব-৫ এর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, পুঠিয়া থানার পীরগাছা এলাকায় বিশেষ মাদক উদ্ধার অভিযানে বের হয়। এ সময় র‌্যাবের উপস্থিতি টের পাওয়া মাত্রই অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাব সদস্যদের উপর এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ আরম্ভ করলে আত্মরক্ষার্থে র‌্যাব সদস্যগণ পাল্টা গুলি চালায়। প্রায় ১০-১৫ মিনিট গুলি বিনিময়ের পর স্থানীয় জনগণের সহযোগিতায় ঘটনাস্থল তল্লাশি করে একজন অজ্ঞাতনামা অস্ত্রধারী মাদক ব্যবসায়ীকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায় এবং গুলি বিনিময়ের সময় দুইজন র‌্যাব সদস্য আহত হয়। আহত ব্যক্তি এবং র‌্যাব সদস্যদেরকে দ্রুত পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত মাদক ব্যবসায়ীকে মৃত ঘোষণা করেন।
উল্লেখ্য, এই বছরের এপ্রিলের শুরুতে পুঠিয়া উপজেলার হলহোলিয়া গ্রামে এখলাস আলীর বাড়িতে বেড়াতে আসে তার শ্যালিকা। অভিযোগ ওঠে, জুসের মধ্যে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন অবস্থায় মেয়েটিকে ধর্ষণ করে এখলাস। পরে সে ৯ এপ্রিল দুপুরে রামজীবনপুর গ্রামের নিজ বাড়ি ফিরে মেয়েটি আত্মহত্যা করে। এ ঘটনায় তার বাবা বাদি হয়ে এখলাস, তার বাবা ও মাকে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।