পুঠিয়ায় নারীর বদনাম ছড়ানোর বিচার চাওয়া মারধরের ঘটনায় আহত ২

আপডেট: জানুয়ারি ২৮, ২০২২, ৯:৫৯ অপরাহ্ণ

পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি:


রাজশাহীর পুঠিয়ায় খোকসা গ্রামে এক নারীর কুৎসা রটানোর বিচার চাওয়াকে কেন্দ্র করে মারধরের ঘটনায় ২ জন আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় অভিযোগ দিয়েও কোনো সুফল না পাওয়ায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছে তারা। গত সোমবার সন্ধ্যা রাতে পুঠিয়া উপজেলা শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের খোকসা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের খোকসা গ্রামে সোমবার (২৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বাবলী ও লাভলী বেগম তাদের চাচা আবু তালেব থান্দার এর বাড়িতে যান। সে সময় পরিকল্পিত ভাবে শায়না শারমিন কেয়া, আবুল সালাম থান্দার, শেফালী বেগম, মনোয়ারা বেগম এবং ফাতেমা বেগম- এরা জেসমিন আক্তার বাবলী এবং লাবলী উপর হামলা চালিয়ে মারধর করে।

জেসমিন আক্তার বাবলী জানান, তারা পরিকল্পিতভাবে আমার নামে বদনাম ছড়াই এবং মারধর করে। সেই দিন রাতে তারা প্রথমে আমার মাথায় আঘাত করে। পরে গলায় ওড়না পেচিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। সে সময় আমার ভাবী লাভলীর সালোয়ার ছিড়ে ফেলে, মারধর করে।

পরবর্তীতে আমি ও ভাবী পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা গ্রহণ করি। কিন্তু আমার থানায় অভিযোগ দিলেও আজ পর্যন্ত মামলা গ্রহণ করেননি থানা পুলিশ। আমরা মার খেয়েছি। আমাদের সম্মান নষ্ট করছে, আর সুষ্ঠু বিচার পাবো না। তাই প্রশাসনের নিকট জোর দাবি সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে মামলা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করছি।

শায়লা শারমিন কেয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি মোবাইলে কোনো সাক্ষাৎকার দেবনা। প্রয়োজনে আপনি আসেন সরাসরি সাক্ষাৎকার দেব- বলে ফোন রেখে দেন।

থানার এসআই আমজাদ হোসেন জানান, উভয় পক্ষ মিমাংসার জন্য ঘুরছে। আর উভয় পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করেছে।
এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ সোহরাওয়ার্দী হোসেন জানান, উভয়ের পক্ষে থেকে থানায় অভিযোগ করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।