পুঠিয়ায় হোটেলে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকায় আটক ১৪

আপডেট: এপ্রিল ৬, ২০১৭, ১২:৩৮ পূর্বাহ্ণ

পুঠিয়া প্রতিনিধি


রাজশাহীর পুঠিয়ায় অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় হোটেল থেকে নারীসহ ১৪ জনকে আটক করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ১১ জনকে সাজা এবং তিন জনকে মুছলেখার মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর বাজারের গ্রীণ ইন্টারন্যাশনাল নামক আবাসিক হোটেল থেকে গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়। এসময় পুঠিয়া যুবলীগ নেতার ছেলে ও হোটেলে ম্যানেজারসহ ১৪ জনকে আটক করে।  হোটেল থেকে আটকের পর যুবলীগে নেতার ছেলেসহ আরো দুইজনকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) শফিকুর আলমের গাড়িতে তোলা হয়। আর অন্য ১১ জনকে তোলা হয় আরেকটি ইমা গাড়িতে। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে জনৈক যুবলীগ নেতার ছেলেসহ তিন জনকে আটকের পর ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।
আটককৃতরা হলেন গ্রীণ ইন্টান্যাশনাল হোটেল ম্যানেজার রাজশাহীর পবা উপজেলার মৃত জব্বার আলীর ছেলে মুনছুর আলী (৪০), তার সহযোগী পুঠিয়া উপজেলার নামাজগ্রাম এলাকার ইউসুফ আলীর ছেলে জিয়ারুল ইসলাম (৩৮), একই উপজেলার খুটিপাড়া এলাকার আমরুল আলীর ছেলে বাবু আলী (২০), পুঠিয়া উপজেলার খুটিপাড়া গ্রামের মকবুল সরকারের ছেলে রিপন আলী (২৬), একই এলাকার হাদিস আলীর ছেলে আলম হোসেন (৩৭), নামাজগ্রাম এলাকার আবুল কাসেমের ছেলে সাদেকুল ইসলাম (২০), ভাংড়া গ্রামের সারোয়ারের ছেলে শান্ত ইসলাম (২২) এবং মকিব্বর আলীর ছেলে নয়ন আলী (২০)। এছাড়া টাঙ্গাইল জেলার নবজলপাই থানার জনৈক ব্যক্তির স্ত্রী (৩৫), চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার জনৈক ব্যক্তি স্ত্রী (২০), ফরিদপুর জেলার সালথা উপজেলার জনৈক ব্যক্তি স্ত্রী (২৫)।
ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শফিকুর আলম আটকৃতদের প্রত্যেককে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদ- প্রদান করেন।
এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ হাফিজুর রহমান জানান, আটককৃতদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আটক ও করাদ- প্রদান করা হলে গতকাল বুধবার দুপুরে তাদেরকে রাজশাহী জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তবে থানায় কোন যুবলীগের ছেলেকে আনা হয় নি বা কারাদ- প্রদান করা হয় নি। তাই বিষয়টি আমার জানা নেই।
এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) শফিকুর আলম জানান, আমরা মোট ১৪ জনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করেছি। তবে তিনজন নাবালক হওয়ার কারণে মুছলেখা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।