পুলিশের উদ্যোগে স্বজনদের ফিরে পেলেন মর্জিনা বেগম

আপডেট: এপ্রিল ১৬, ২০২১, ৯:১২ অপরাহ্ণ

নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলায় রাস্তার পাশ থেকে উদ্ধার হওয়া মানসিক ভারসাম্যহীন বৃদ্ধাকে (৮০) চার দিন পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে মহাদেবপুর থানা পুলিশ রাজশাহীর পবা উপজেলার হাটপারিলা গ্রামে উপস্থিত হয়ে স্বজনদের কাছে তাকে হস্তান্তর করে। মহাদেবপুর থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে স্থানীয় এক ব্যক্তি জানান, উপজেলার সুজাইল এলাকায় রাস্তার পাশে মুমূর্ষু অবস্থায় এক বৃদ্ধা পড়ে রয়েছেন। খবর পয়ে সেখান থেকে ওই বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা মহাদেবপুর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দিয়ে ওই বৃদ্ধার পরিচয় নিশ্চিত করে তাকে নিয়ে যাওয়ার জন্য থানায় যোগাযোগ করতে বলা হয়। ওই বৃদ্ধার পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর শুক্রবার দুপুরে ওই বৃদ্ধাকে রাজশাহীর পবা উপজেলার হাটপারিলা গ্রামে তার ছোট ছেলে মজিবর রহমানের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়।
মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজম উদ্দিন আহমেদ বলেন, ওই বৃদ্ধার নাম মর্জিনা বেগম। তার দুই মেয়ে ও এক ছেলে। মর্জিনা রাজশাহীর পবা উপজেলার হাটপারিলা গ্রামে ছেলের বাড়িতে বসবাস করতেন। দুই বছর আগে মেয়ের বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে তিনি নিখোঁজ হন। মর্জিনার ছেলেমেয়েরা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করেন। জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় উপজেলার সুজাইল এলাকা থেকে মর্জিনাকে উদ্ধার করে মহাদেবপুর থানা পুলিশ। ওই বৃদ্ধা নিজের নাম ও পরিচয় জানাতে পারছিলেন না। পরে তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া নওগাঁর পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আব্দুল মান্নান মিয়ার নির্দেশে শুক্রবার দুপুরে তাকে তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর কর হয়। দুই বছর পর মর্জিনাকে ফেরত পেয়ে পরিবারের সদস্যরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।