পুলিশ পেটানো মামলায় গুরুদাসপুর পৌর মেয়রসহ চারজন ঢাকায় গ্রেফতার

আপডেট: মে ১৬, ২০১৭, ৩:২০ পূর্বাহ্ণ

গুরুদাসপুর প্রতিনিধি


নাটোরের গুরুদাসপুর থানা পুলিশকে পেটানো ও সরকারি কাজে বাধাদান সংক্রান্ত মামলায় উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলীসহ তার তিন সমর্থক ঢাকায় গ্রেফতার হয়েছেন।
গতকাল সোমবার সকাল ৯টার দিকে গুরুদাসপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুরে আলম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে একদল পুলিশ রাজধানীর প্রেসক্লাব এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করেন।
গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিলীপ কুমার দাস সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃতদের ঢাকা থেকে নাটোর জেলহাজতে আনা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত অন্য তিনজন হলেন আমিরুল ইসলাম (৩২) বক্স সোনার (৩২) ও বাবু (২৪)।
গুরুদাসপুর থানা ও মেয়র সমর্থকদের সূত্রে জানা গেছে, গত ১১ মে উপজেলা পরিষদের হলে মাসিক সমন্বয়সভা অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় সাংসদ আবদুল কুদ্দুস সেখানে প্রধান অতিথি থাকার কথা ছিল। পৌর মেয়র শাহনেওয়াজের মোটরসাইকেল বহর উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে ঢুকতে গেলে তাকে বাধা দেয় পুলিশ। এসময় কতিপয় পুলিশ সদস্য মেয়রকে বেধড়ক কিল-ঘুষি, লাথি ও বন্দুকের বাট দিয়ে পেটানো হয় বলে মেয়রসহ তাঁর সমর্থকরা জানান। এসময় মেয়র সমর্থকরা মেয়রকে নিবৃত্ত করতে গেলে মেয়র সমর্থক ও পুলিশের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে পাঁচ পুলিশ সদস্য পাঁচ মেয়র সমর্থক আহত হয়।
ওই ঘটনায় সরকারি কাজে বাধাদান ও পুলিশ পেটানোর অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়। পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) সাইদুজ্জামান বাদি হয়ে ওই মামলাটি করেন। মামলায় মেয়র শাহনেওয়াজকে প্রধান করে ৬৭ জনসহ আরো ২শ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়।
এদিকে মেয়র শাহনেওয়াজের চাচাতো ভাই ও উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহসভাপতি আনিসুর রহমান মোল্লা গতকাল মুঠোফোনে জানান, মামলা দায়ের হওয়ার পর জামিনের জন্য উচ্চআদালতে যান। সকালে আদালতে পাওয়ার পথে মেয়রসহ তার তিন সমর্থককে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে একই মামলার ৬০ আসামি জামিন নিয়েছেন। মেয়র শাহনেওয়াজের জামিনের প্রক্রিয়া চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ