পুলিশ সদস্যের থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়া মামলায় প্রতারকের ১০ বছরের কারাদন্ড

আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০২২, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :


প্রতারণা করে এক পুলিশ সদস্যের থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়ায় এক ব্যক্তিকে ১০ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। সোহাগ মাহমুদ বাপ্পী ওরফে রনি নামের এক ব্যক্তিকে ২টি ধারায় কারাদন্ডসহ ১০ লক্ষ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাস করে মোট ১২ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

আসামী গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার বাসিন্দা। বর্তমানে সে পলাতক রয়েছে। রোববার (২ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৮ অক্টোবর বগুড়া পুলিশ লাইনসে কর্মরত কনস্টেবল রবিউল ইসলাম প্রতারণা মামলা করেন। তার বাড়ি পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায়। মামলার এজাহারে তিনি কোনো আসামির নাম উল্লেখ করেন নি। পুলিশের তদন্তে সোহাগ মাহমুদ বাপ্পী ওরফে রনির সংশ্লিষ্টতা ধরা পড়ে। সে মুঠোফোনে বগুড়ার পুলিশ সুপার পরিচয় দিয়ে কনস্টেবল রবিউলের কাছ থেকে প্রতারণার মাধ্যমে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছিলো।

আদালতের রায়ে সোহাগ মাহমুদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮-এর ২৩(১)/ ২৪(১) ধারায় অপরাধ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাকে দোষী সাব্যস্ত করে ৫ বছরের সশ্রম কারাদ- ও ৫ লাখ টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড এবং ২৪(২) ধারায় ৫ বছর সশ্রম কারাদন্ড ও ৫ লাখ টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন বিচারক। একটি ধারায় সাজা শেষে অন্যটি কার্যকর হবে বলে জানানো হয়। এছাড়া আসামির হাজতবাস মূল কারাদন্ড থেকে বাদ যাবে। আর পলাতক থাকায় তার গ্রেপ্তার বা আত্মসমর্পণের তারিখ থেকে সাজা কার্যকর হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ