পুলিশ হত্যামামলায় হাজিরা দিলেন মিনু-বুলবুল

আপডেট: এপ্রিল ১০, ২০১৭, ১২:০৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


পুলিশ কনস্টেবল সিদ্ধার্থ সরকার হত্যা মামলায় হাজিরা দিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু ও সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলসহ বিএনপি নেতাকর্মীরা। গতকাল রোববার দুপুরে তারা রাজশাহী মহানগর জজ আদালতে হাজিরা দেন।
অন্য আসামিদের মধ্যে ছিলেন, বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন শওকত, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান পিন্টু, মহানগর যুবদলের সভাপতি ওয়ালিউল হক রানা, মহানগর ছাত্রদলের প্রাক্তন সভাপতি মাহাফুজুর রহমান রিটন। মামলাটিতে চার্জশিটভুক্ত আসামির সংখ্যা ৮৯ জন।
প্রসঙ্গত, বিএনপি-জামায়াতের সরকারবিরোধী আন্দোলনের সময় ২০১৩ সালের ২৬ ডিসেম্বর রাজশাহী মহানগরীর লোকনাথ স্কুলের সামনে ১৮ দলীয় জোটের মিছিল থেকে পুলিশের কাভার্ডভ্যানে বোমা হামলা চালানো হয়। হামলায় কনস্টেবল সিদ্ধার্থ সরকারসহ ৯ পুলিশ সদস্য আহত হন। ওই দিনই বিশেষ হেলিকপ্টারযোগে সিদ্ধার্থকে ঢাকা সিএমএইচে পাঠানো হয়। সেখানে রাতে সিদ্ধার্থ মারা যান।
এ ঘটনায় ওই রাতেই নগরীর বোয়ালিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম বাদি হয়ে বিএনপির ৮৯ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ করে মোট ৩৫০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে হত্যা ও বিস্ফোরকদ্রব্য আইনে দুটি মামলা করেন। পরে ২০১৪ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর এ মামলার অভিযোগপত্র দাখিল হয়।
মামলায় অভিযুক্ত হওয়ায় ২০১৫ সালে ৭ মে মেয়র বুলবুলকে পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। ২০১৬ সালের ১০ মার্চ উচ্চ আদালত তার বরখাস্ত আদেশ স্থগিত করেন। এরপর গত ২ এপ্রিল আবার নিজের চেয়ারে বসেন বুলবুল। কিন্তু ওই দিনই তাকে আবার একই কারণে বরখাস্ত করা হয়। পরদিন এর বিরুদ্ধেও উচ্চ আদালতে রিট করেন বুলবুল। এতে তিনি দায়িত্ব ফিরে পান।
গত ৪ এপ্রিল থেকে আবার মেয়রের পদে বসেছেন রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি বুলবুল। পুলিশ হত্যা মামলার পর প্রায় এক বছর তিনি পলাতক ছিলেন। পরে গত বছরের ১৩ মার্চ তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। কিন্তু আদালত তাকে কারাগারে পাঠান। পরে ওই বছরের ১ জুন তিনি জামিনে মুক্তি পান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ