পৌর নির্বাচন: পঞ্চম ধাপে কমেছে ভোটের হার

আপডেট: মার্চ ১, ২০২১, ৮:৪৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


এবার পৌরসভা নির্বাচনের পাঁচ ধাপে মেয়র পদে গড়ে ৬৫ শতাংশ ভোট পড়েছে।
ডিসেম্বর থেকে ফেব্রুয়ারি পযন্ত পাঁচ ধাপে এ নির্বাচন হয়।
২৩০ পৌরসভার ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, মেয়র পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জয় পেয়েছে ১৮৫ পৌরসভায়। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জয় পেয়েছে ৩২ পৌরসভায়। বিএনপির ধানের শীষের ১১ জন প্রার্থী, জাতীয় পার্টির একজন ও জাসদের একজন প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে।
ইভিএম ও ব্যালট পেপারে ভোট হয় এবার। গোলযোগ-সহিংসতা ও ভোট কেন্দ্র দখলের অভিযোগের মধ্যে নির্বাচন কমিশন বরাবরই দাবি করে এসেছে, সুষ্ঠু ও ভালো ভোট হয়েছে।
২৮ ডিসেম্বরের প্রথম ধাপে ভোট পড়েছিল ৬৫.২৫%; ১৬ জানুয়ারির দ্বিতীয় ধাপে পড়ে ৬৩.৬৭%; ৩০ জানুয়ারির তৃতীয় ধাপে ৭০.৪২%; ১৪ ফেব্রুয়ারির চতুর্থ ধাপে ৬৫.৩৩% এবং ২৮ ফেব্রুয়ারির পঞ্চম ধাপে ৫৮.৬৭ ভোট পড়েছে।
সেই হিসাবে পঞ্চম ধাপে এসে ভোটের হার কমে ৬০ শতাংশের নিচে নেমেছে।
১১ এপ্রিল ষষ্ঠ ধাপে ৯ পৌরসভার ভোট রয়েছে।
পাঁচ বছর আগে কাজী রকিবউদ্দিন আহমদ নেতৃত্বাধীন কমিশনের অধীনে একদিনে পৌরসভায় যে ভোট হয় তাতে দলীয় প্রতীকে মেয়র পদের নির্বাচনে ৭৩.৯২% ভোট পড়েছিল। ২০১১ সালে এটিএম শামসুল হুদা কমিশনের অধীনে গড়ে প্রায় ৭৮ শতাংশ ভোট পড়েছিল।
কে এম নূরুল হুদা নেতৃত্বাধীন বর্তমান ইসির অধীনে ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলক কম হওয়া নিয়ে বরাবরই সমালোচনার মুখে পড়তে হয়।
এবারের পৌরসভা নির্বাচনে গোলযোগ ও সহিংসতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার সমালোচনা করেছেন।
তবে গড় উপস্থিতি বাড়ায় সন্তুষ্টিও ছিল।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ