প্যাকেজিং শিল্পে পাটের ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে আইনের প্রয়োগে আরও কঠোর হতে হবে

আপডেট: ডিসেম্বর ৩, ২০২১, ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ

পাট সোনালি আঁশের দেশ হিসেবে বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশকে পরিচিত করেছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের প্রধান খাতও ছিলো পাট। বর্তমান বিশ্ব বাস্তবতায় পরিবেশবান্ধব তন্তু হিসেবে পাটের বিকল্প নেই। পরিবেশবান্ধব এই পাট ও পাটপণ্য সহজে পচনশীল। টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) বাস্তবায়নেও পাটপণ্য ব্যবহারে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। সুতরায় দেশীয় এই সম্পদকে কাজে লাগাতে হবে। প্যাকেজিং শিল্পের সর্বত্র পাটের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।
পরিবেশবান্ধব প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন চালু করেছেন।
পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ এর আওতায় ধান, চাল, গম, ভুট্টা, সার, চিনি, মরিচ, হলুদ, পেঁয়াজ, আদা, রসুন, ডাল, ধনিয়া, আলু, আটা, ময়দা ও তুষ-খুদ-কুড়া মোট ১৭টি পণ্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২০১৮ সালের ৬ আগস্ট পোল্ট্রি ও ফিস ফিড সংরক্ষণ ও পরিবহনে পাটের বস্তার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়। এ দুটি পণ্যসহ মোট ১৯টি পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহারের জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে।
নানা প্রতিবন্ধকতার মাঝেও পাট উৎপাদন ও বহুমুখী ব্যবহারে কৃষকসহ উদ্যোক্তরা এগিয়ে আসছেন। যারা সবুজ পৃথিবী গড়তে কাজ করে যাচ্ছেন। অপরদিকে, করোনাকালে নতুন অনেক উদ্যোক্ত তৈরি হয়েছেন। খরচ বেশি হওয়ায় তারা পাটের মোড়ক ব্যবহারে তেমন আগ্রহী না। এক্ষেত্রে সরকারি-বেসরকারি পৃষ্টপোষকতার মাধ্যমে নতুন এসব উদ্যোক্তাদের প্রণোদিত করতে হবে।
পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন ২০১০ প্রণয়নের প্রধান উদ্দেশ্যে হলো পাটের অভ্যন্তরীণ ব্যবহার বৃদ্ধি করা ও পাট শিল্পকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করা। ২০১৩ সালের বিধিমালা মোতাবেক ১৯ টি পণ্যে পাটের মোড়ক ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা হয়। ২০২০-২১ সালে রাজশাহী জেলায় পাটের বপন ছিল ১৩ হাজার ৮৩৬ হেক্টর জমিতে। ২০২১-২২ সালে বপন বেড়ে হয়েছে ১৮ হাজার ০৩৯ হেক্টর। বর্তমানে চাষীরা পাটের ন্যায্য মূল্য হিসেবে গড়ে ৩ হাজার টাকা মণ দাম পাচ্ছে। দাম পাওয়ায় পাট চাষে কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে। এই আগ্রহকে ধরে রেখে পাটের বহুমুখী ব্যবহারে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। সর্বোপরি প্রকৃতিকে প্লাস্টিকের আগ্রাসনমুক্ত করতে এই আইনের কার্যকর বাস্তবায়ন এখন সময়ের দাবি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ