প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে বিশিষ্ট নাগরিক ও সুধিজনের সাথে রাসিক মেয়রের মতবিনিময় ‘এখন প্রধানমন্ত্রীকে দেয়ার সময়’

আপডেট: জানুয়ারি ২৫, ২০২৩, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:


আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে বিশিষ্ট নাগরিক ও সুধীজনের সাথে মতবিনিময় করছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে নগর ভবনে সিটি হলরুমে আয়োজিত সভায় অংশগ্রহণকারীরা প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে এবং রাজশাহী মহানগরীর উন্নয়ন নিয়ে বিভিন্ন পরামর্শ ও মতামত প্রদান করেন। অংশিজনেরা তাঁদের বক্তব্যে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী আমাদের দিয়েই গেছেন। আমরা রাজশাহীবাসী যা চেয়েছেন তাই দিয়েছেন, যা চাইনি তিনি তারপরেও দিয়েছেন। আজ সময় এসেছে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়ার। সেটা হলো আওয়ামী লীগকে আবারো নির্বাচিত কওে ক্ষমতায় আনতে হবে। তবেই বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করা যাবে। কেবল তবেই মানবিক ও অসাম্প্রদায়িক বাংলােেদশের অগ্রযাত্রা অব্যাহতভাবে এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে রাসিক মেয়র এএইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ইতোমধ্যে পদ্মাসেতু, মেট্রোরেল সহ বিভিন্ন মেগা প্রকল্প এর উদ্বোধন করা হয়েছে। এই বছরে আরো মেগা প্রকল্পের উদ্বোধন হবে।

মেয়র আরো বলেন, রাজশাহী মহানগরীর উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২ হাজার ৮০০ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন। প্রকল্পের আওতায় রাজশাহী মহানগরে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ চলছে। কর্মসংস্থান ও শিল্পায়নের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্কের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বিসিক শিল্পনগরী-২ তৈরি করা হয়েছে। এখন প্লট বরাদ্দের অপেক্ষায় রয়েছে। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়ন প্রকল্পের নামকরণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই প্রকল্পের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মানুষের উন্নয়ন, নারীদের উন্নয়ন ও ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটছে।

মেয়র আরো বলেন, রাজশাহী শিক্ষানগরী হিসেবে দেশব্যাপী পরিচিত। রাজশাহীর শিক্ষাক্ষেত্রকে এগিয়ে নিতে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলা হচ্ছে। আরো দুটি সরকারি স্কুল প্রতিষ্ঠা পাচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন বিশেষায়িত স্কুল প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে হলিক্রস স্কুল এন্ড কলেজ যাত্রা শুরু করেছে।

তিনি আরো বলেন, আগামী ২৯ জানুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে আসছেন। ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠে জনসভায় তিনি ভাষণ দেবেন। প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে জানুয়ারি মাসের ১ তারিখ থেকে আমরা প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। নগরীকে বর্ণিল সাজে সাজানো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর জনসভা সফল করতে সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

সভামঞ্চে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুল খালেক, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর গোলাম সাব্বির সাত্তার, সাবেক প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক জিনাতুন নেসা তালুকদার, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি নূর কুতুবউল আলম, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড.এবিএম শরিফ উদ্দিন, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি প্রফেসর নুরুল আলম, বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. শামসুদ্দিন খোকন, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শাহ আজম শান্তনু, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল, সাধারণ সম্পাদক মো. ডাবলু সরকার প্রমুখ।

মতবিনিময় সভা সঞ্চালনা করেন দৈনিক সোনার দেশ পত্রিকার সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত।
সভায় বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ওসমান গনি তালুকদার, রাজশাহী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক কবি আরিফুল হক কুমার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলী, রাজশাহী এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ড. তসিকুল ইসলাম রাজা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপউপচার্য প্রফেসর আনন্দকুমার সাহা, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি প্রফেসর দুলাল চন্দ্র বিশ্বাস, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রফেসর পিএম শফিকুল ইসলাম, স্বাচিপের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ডা. তবিবুর রহমান শেখ, হেরিটেজ রাজশাহীর প্রতিষ্ঠাতা প্রফেসর ড. মাহবুবুর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ইলিয়াছ হোসেন, স্বাচিপ রামেক শাখার সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ডা. মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান খান বাদশা, মহিলা পরিষদ রাজশাহীর সভাপতি কল্পনা রায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মাসুদুর রহমান রিংকু, সিনিয়র সাংবাদিক মুস্তাফিজুর রহমান খান, বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি রাজশাগীর সভাপতি অধ্যাপক শফিকুর রহমান বাদশা, সোনালী সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক লিয়াকত আলী, রাজশাহী কলেজের সহযোগী অধ্যাপক আনিসুজ্জামান মানিক সহ বিশিষ্ট নাগরিক ও সুধীবৃন্দ অংশ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ মতামত ব্যক্ত করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ