প্রধান শিক্ষককে পেটালেন আ’লীগ নেতাকর্মীরা

আপডেট: এপ্রিল ৬, ২০১৭, ১২:৪০ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর দুর্গাপুরের কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ তিনজনকে পিটিয়ে আহত করেছেন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল মজিদ সরদার ও তার লোকজন।
গতকাল বুধবার সকালে এ ঘটনার সময় বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষও ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনায় আহতরা হলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন (৫৫), সহকারী শিক্ষক (শরীর চর্চা) সাইফুল ইসলাম (৪০) ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির ছেলে রবিউল ইসলাম (৪২)। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
পুলিশ ও বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা জানান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল মজিদ সরদার লোকজন নিয়ে বিদ্যালয়ে প্রবেশ করে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ আরো দুইজনকে মারপিট করা হয়।
প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন জানান, কয়েকদিন আগে বিদ্যালয়ের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের লক্ষ্যে রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডে তালিকা পাঠানো হয়। আব্দুল মজিদকে না জানিয়ে ওই তালিকা কেন বোর্ডে পাঠানো হয়েছে- এ ধরনের অভিযোগ তুলে আব্দুল মজিদ লোকজন নিয়ে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে প্রবেশ করে তার শার্টের কলার ধরে টেনে বাইরে বের করতে থাকেন।
এ সময় বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সাইফুল ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল গফুর শাহর ছেলে রবিউল ইসলাম বাধা দিলে আব্দুল মজিদ তাদের সরে যেতে বলেন। একপর্যায়ে লাঠি ও হাতুড় দিয়ে তাকে পিটাতে থাকে মজিদ ও তার লোকজন। এ সময় তাকে বাঁচাতে গেলে সহকারী শিক্ষক সাইফুল ইসলামকেও মারপিট করা হয়।
বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল গফুর শাহ জানান, বিদ্যালয়ে ক্লাস চলাকালীন আব্দুল মজিদ লোকজন নিয়ে হামলা চালায় এবং বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষ ভাঙচুর করে। প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেনকে বাঁচাতে গেলে তার ছেলে রবিউল ইসলামকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এ সময় রবিউলের বাম হাতের আঙ্গুল কেটে যায়। এছাড়া সহকারী শিক্ষক সাইফুলকেও মাটিতে ফেলে কিলঘুষি ও লাঠি দিয়ে আঘাত করা হয়।
দুর্গাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের টিএইচও ডা. দেওয়ান নাজমূল আলম জানান, আহতদের মধ্যে প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার ডান চোখের নিচে হাতুড় দিয়ে আঘাত করার কারণে চোখের নিচে ফুলে রক্ত জমাট বেঁধেছে। এছাড়া ডান কানের পর্দা ফেটে রক্ত বের হচ্ছে। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। এছাড়া আহত রবিউল ইসলামের বাম হাতের আঙ্গুলে চারটি সেলাই দেয়া হয়েছে। রবিউল ও সাইফুলকে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।
তবে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আব্দুল মজিদ সরদার বলেন, স্কুলের কমিটি নিয়ম মাফিকভাবে করা হয়নি। এটি অভিভাবকদেরও জানানো হয়নি, সাংসদের কথায় কমিটি হয়েছে। এনিয়ে কথা কাটাকাটির একপর্যয়ে এক সদস্য (ম্যানেজিং কমিটির) কর্তৃক প্রধান শিক্ষক লাঞ্ছিত হয়।
দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রুহুল আলম জানান, এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ে পুলিশ পাঠানো হয়। এ সময় মজিদ ও তার লোকজন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ