প্রয়াত সভাপতি হেনা দাসের জন্মশত বার্ষিকীতে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন মহিলা পরিষদ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২৪, ১০:০১ অপরাহ্ণ


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে সাম্যবাদে বিশ্বাসী, আজীবন বিপ্লবের অনির্বাণ দীপ শিখা, সংগঠনের প্রয়াত সভাপতি হেনা দাসের জন্মশত বার্ষিকীতে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণে সোমবার ( ১২ ফেব্রুয়ারি) বিকাল ৪টায় নিজস্ব কার্যালয়ে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি কল্পনা রায় । সভা সঞ্চালনা করেন প্রশিক্ষণ সম্পাদক সেলিনা বানু।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লিগ্যাল এইড সম্পাদক শিখা রায়, সদস্য কৃষ্ণা রানী মন্ডল, কৃষ্ণা সরকার তরুণী সদস্য সামিয়ার ও ঈশিতা সহ বিভিন্ন পাড়া কমিটির সদস্য প্রমূখ।
সভায় বক্তারা বলেন, হেনা দাসের আদর্শভিত্তিক রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় একেবারে কিশোর বয়স থেকে । সেই সময়ের অগ্রণী কমিউনিস্ট নেতৃবৃন্দের কর্ম জগতের সবটুকু ছিল রাজনীতিকেন্দ্রিক। রাজনীতির বাইরে তাদের জীবনে অন্য কোন জগৎ ছিল না। সে রাজনীতি ছিল দেশপ্রেম, সততা, ত্যাগ এবং মানবকল্যাণে নিবেদিত। হেনা দাস ছিলেন সেই ধারার রাজনীতিবিদ। তার কর্মজীবন আলোচনা করলে দেখা যায় জীবনের সুদীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে হেনা দাস পরিণত হয়েছেন কিংবাদন্তীতে।

বক্তারা আরো বলেন, ১৯৭০ সালে আবার যুক্ত হন নারী মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে ।ইতিহাসের ধারাবাহিকতায় ১৯৭০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় আন্দোলনমুখী স্বেচ্ছাসেবী গণনারী সংগঠন মহিলা পরিষদ। তিনি প্রথমে নারায়ণগঞ্জে যুক্ত হন মহিলা পরিষদের কর্মকান্ডে। সুফিয়া কামালের প্রায়ানের পর ২০০০ সালে তিনি মহিলা পরিষদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব নেন জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত এই দায়িত্ব তিনি পালন করেছেন। আচ্ছা তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সমৃদ্ধ হয়ে নারী আন্দোলনে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ।